ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হলো নয়ডার যমজ ইমারত



HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়ডা ঃ অবশেষে রবিবার ২৮ আগস্ট দুপুরে ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হল নয়ডার অবৈধ যমজ ইমারতকে (টুইনস টাওয়ার)। আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী, রবিবার দুপুর নাগাদ একটি মাত্র বোতামে টিপে ধ্বংস করা হয় অবৈধ ভাবে গড়ে ওঠা এই বেআইনি ইমারত। মাত্র ৯ সেকেন্ডে ৯ বছর ধরে তৈরি করা কুতুব মিনারের থেকেও উঁচু গগনচুম্বী ইমারত আজ ধূলিসাৎ হলো। 



জানা গেছে, সুপারটেক এমারেল্ড কোর্ট হাউজিং সোসাইটি মাত্র চৌদ্দতলা অট্টালিকা তৈরির অনুমোদন দেয় নির্মাণ সংস্থাকে। কিন্তু সংস্থার দাবি, তাদের কাছে চল্লিশতলা টাওয়ারের অনুমোদন রয়েছে। যা মানতে নারাজ হাউজিং সোসাইটি। সেই মর্মে ২০১২ সালে এলাহাবাদ হাই কোর্টে মামলা করে এমারেল্ড কোর্ট হাউজিং সোসাইটি।

আর ২০১৪ সালে হাউজিং সোসাইটির পক্ষে রায় দিয়ে উচ্চ আদালত টুইন টাওয়ার ভেঙে ফেলার নির্দেশ দেন। পরে সর্বোচ্চ উচ্চ আদালও একই রায় দেয়। সেই অনুযায়ী আদালতের নির্দেশ মেনে ৩ হাজার ৭০০ কেজি বিস্ফোরকের সাহায্যে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় অট্টালিকা। নিমেষে মাটিতে মুখ থুবড়ে পড়ে ১০০ মিটার উচ্চতার অ্যাপেক্স ও ৯৭ মিটার উঁচু সিয়ান নামের টাওয়ার দুটো।



গোটা এলাকা ঢেকে যায় ধুলোর মেঘে। ইতিমধ্যেই ৮০০০ টন ধ্বংসাবশেষ সরানোর কাজ শুরু হয়ে গেছে, যদিও তা সম্পূর্ণ করতে সময় লাগবে পাক্কা তিন মাস। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দু’টি টাওয়ারের মধ্যে দূরত্ব থাকার কথা ছিল ১৬ মিটারের মত। কিন্তু নির্মাণ সংস্থা সেই দূরত্ব না রেখে তা ৯ মিটারে নিয়ে আসে। আরও বেশকিছু অভিযোগ ছিল নির্মাণ সংস্থার বিরুদ্ধে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: