July 20, 2024

শুভেন্দুর আপত্তিকে আমল না দিয়ে আরও ছয়মাসের জন্য মুখ্যসচিবের মেয়াদ বাড়ালো কেন্দ্র

0

HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : কেন্দ্রীয় সরকার (Central Government) আরও ৬ মাসের জন্য পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদীর (Chief Secretary Hare Krishna Dwivedi) মেয়াদ বাড়িয়ে দিলো। গেলো মাসের শেষ শুক্রবার ছিল তাঁর কর্মজীবনের অন্তিম দিন। স্বাভাবিকভাবেই প্রশাসনিক স্তরে দেখা গিয়েছিল উদ্বেগ। কারন বৃহস্পতিবার পর্যন্ত মেয়াদবৃদ্ধি সংক্রান্ত কোনো চিঠি আসেনি তাঁদের কাছে।

কিন্তু তার সঙ্গে আশাবাদীও ছিল যে, শুক্রবার দিন শেষের আগেই হয়তো মেয়াদ সংক্রান্ত কেন্দ্রীয় ছাড়পত্র এলেও আসতে পারে। বাস্তবে ঘটলও কিন্তু তেমনি। হরিকৃষ্ণের (Hare Krishna Dwivedi) মেয়াদ বেড়ে যাওয়ার ফলে পঞ্চায়েত ভোটের আগে রাজ্য প্রশাসনে কোনও রদবদলের প্রয়োজনও পড়ছে না। সেদিক দিয়ে আশ্বস্ত হলেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী (Minister of Bengal)। কারণ, দ্বিবেদী রাজনৈতিক মহলে মমতার বিশেষ ‘আস্থাভাজন’ বলেই পরিচিত।

প্রসঙ্গত, দ্বিবেদীর মেয়াদ যাতে না বাড়ানো হয়, তার জন্য বিরোধী দলনেতা (Opposition Leader) শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari) কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী (Union Home Minister) অমিত শাহকে (Amit Shah) অনুরোধ জানিয়ে ছিলেন। তিনি যে দ্বিবেদীর ‘পক্ষে’ নন, তা একাধিক বার প্রকাশ্যেই জানিয়েছেন। প্রকাশ্যে একাধিক অভিযোগও এনেছিলেন দ্বিদেবীর বিরুদ্ধে। রাজ্য বিজেপি সূত্রের খবর, অমিতের কাছেও তিনি বিষয়টি নিয়ে বহুবার নানাভাবে বিবেচনার কথা বলেছিলেন।

যদিও শুভেন্দু অধিকারীর (Suvendu Adhikari) ঘনিষ্ঠ সূত্রের খবর, এই বিষয়টিকে বারবারই উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। বলা হয়েছে, রাজ্যের কোনও আমলাকে নিয়ে বিরোধী দলনেতার (Opposition Leader) এত মাথাব্যথার কোনো কারন নেই। তবে রাজ্য বিজেপিরই (State BJP) একাংশের বক্তব্য, শুভেন্দু যে দ্বিবেদীর মুখ্যসচিব পদে এই মেয়াদবৃদ্ধি পছন্দ করবেন না, তা বলাই বাহুল্য।

এখন দেখার বিষয়, শুভেন্দু অধিকারী (Subhendu Adhikari) কেন্দ্রীয় সরকারের (Central Government) এই সিদ্ধান্ত নিয়ে কোনও মন্তব্য করেন কি না। আর অন্যদিকে মুখ্যসচিব (Chief Secretary) পদে তাঁর মেয়াদবৃদ্ধি হবে কি না, তা নিয়ে দোলাচলে ছিলেন দ্বিবেদী নিজেও। গত কয়েকদিন তিনি সে ভাবে কারও সঙ্গে কথাও বলেননি তেমন। তবে প্রশাসনিক মহলের অনুমান ছিল, মুখ্যমন্ত্রী (Chief Minister) বিষয়টি সম্পর্কে অবহিত থাকলেও থাকতে পারেন।

কারণ, কপ্টার-দুর্বিপাকে আহত মুখ্যমন্ত্রী (Chief Minister) বাড়িতে থাকলেও তিনি স্বরাষ্ট্রসচিব (Home Secretary) গোপালিকাকে (Gopalika) ডেকে পাঠিয়ে ভবিষ্যৎ কর্মপন্থা সম্পর্কে আলোচনা করেছেন, এমন কথা কেউ জানতেন না। যদিও তাঁর সঙ্গে দৌড়ে আরও দু’একজন ছিলেন। কিন্তু তাঁরা অনেক পিছিয়েই ছিলেন। এখন অবশ্য তাঁদের কারওরই নাম নিয়ে আর জল্পনা বা আলোচনার অবকাশ রইল না।

Leave a Reply