করোনা আবহে লকডাউন ও সাইক্লোন ইয়াসের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ দুর্গতদের হাতে ভালোবাসার দান তুলে দিলেন শিক্ষক তপন বৈদ্য

HnExpress ইন্দ্রানী সেনগুপ্ত, বারাসাত ঃ বর্তমানে দেশ তথা সারা বাংলা জুড়ে চলছে মহামারী করোনার দ্বিতীয় ঢেউ। আর সেই মহামারীর হাত থেকে সাধারণ মানুষকে রক্ষা করার স্বার্থেই রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে ১৬ই মে থেকে ১৫ই জুন পর্যন্ত জারি করা হয়েছে কড়া লকডাউন। কিন্তু বিগত বছর থেকে এখনো পর্যন্ত কোভিড মোকাবিলায় পর্যায়ক্রমে চলতে থাকা এই লকডাউনের জেরে বহু মানুষ আজ কর্মহীন। তার মধ্যে দোসর হয়েছে ইয়াস সাইক্লোন।

যার উন্মাদ তান্ডবে বিধ্বস্ত এবং নাজেহাল অবস্থার চিত্র রাজ্যের একাধিক অঞ্চলে। আর এমনই একটি জায়গা হলো উত্তর ২৪ পরগনা জেলার অন্তর্গত বারাসাতের পূর্বাশা (৩২নং ওয়ার্ড)। ইয়াস তার বিধ্বংসী তান্ডব নৃত্য করে চলে গেছে প্রায় হপ্তাখানেক হবে। কিন্তু এই এলাকার বেশ কিছু অঞ্চল নিম্নভূমি হওয়ায় আজও জলমগ্ন অবস্থায় ডুবে রয়েছে। একদিকে করোনা আবহে লকডাউনের ফলে কর্মহীনতা আর অপরদিকে ইয়াসের প্রলয়ের ফলে জলমগ্ন অবস্থায় গৃহবন্দী হয়ে নিদারুণ আর্থিক সংকটে ও দুর্দশার মধ্যে দিন যাপন করেছেন এলাকার বহু সাধারণ মানুষ।

আর এই আর্থিক ভাবে পিছিয়ে পড়া নিরান্ন মানুষগুলির মুখে দুমুঠো অন্ন জোগাতে নিতান্তই বদ্ধপরিকর “বারাসাত নাগরিক সমাজ” নামক একটি স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন। যার মূল আহ্বায়ক হলেন আমডাঙ্গা উচ্চ বিদ্যালয়ের শিক্ষক তথা বিশিষ্ট সমাজসেবক তপন বৈদ্য। এদিন সংগঠন এর পক্ষ থেকে বারাসাত পৌরসভার পৌর প্রশাসক সুনীল মুখার্জীর কাছেও তিনি বিনীত আবেদন রাখেন যে, এই জলমগ্ন নিম্নভূমি এলাকাগুলি পরিদর্শন করে এ বিষয়ে যাতে পর্যালোচনা করে খতিয়ে দেখা হয় এবং দূর্গত মানুষের কাছে তাঁর সর্বতো সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেন।

তিনি আরও বলেন যে, আজ এখানে খাদ্য সামগ্রী তুলে দিতে এসে যেরূপ অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ দেখলাম তাতে আজ আমি রীতিমতো বিহ্বল। আমি আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্ষুদ্র প্রয়াস স্বরূপ কিছু মেডিকেল সামগ্রিও পৌঁছে দেওয়ার চেষ্টা করব। তিনি আমাদের সংবাদ মাধ্যমকে জানান, আগামী দিনে আমরা চেষ্টা করবো এমন কিছু অভুক্ত মানুষ যাদের রান্না করে খাওয়া সম্ভব নয় তাদের কাছেও যাতে রান্না করা খাওয়ার পৌঁছে দেওয়া যায়।

আর তার জন্য দরকার একটি কমিউনিটি কিচেনের। যে বিষয় আমরা বারাসাত নাগরিক সমাজ এর পক্ষ থেকে রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ এর কাছে একটি মানবিক প্রস্তাব নিয়ে যাবো। এদিন এই মহতী অনুষ্ঠানে তপন বৈদ্য ছাড়াও আরও উপস্থিত ছিলেন বহু বিশিষ্টবর্গ সহ সংস্থার সকল সদস্যবৃন্দ। আগামীকালও তাঁরা তৃণমূল মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির পক্ষ থেকে বেশকিছু ভালোবাসার দান সামগ্রী নিয়ে যাবেন ইয়াস কবলিত সুন্দরবনের পার্শ্ববর্তী অঞ্চল হিঙ্গলগঞ্জ এলাকার অসহায় দুর্গত মানুষদের কাছে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: