শুভেন্দু আধিকারীকে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত— “শুভেন্দুর পদত্যাগ পত্র গ্রহণ”, দফতর সামলাবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

HnExpress ২৮শে নভেম্বর, অরুণ কুমার, কলকাতা ঃ অবশেষে, শুভেন্দু আধিকারীকে নিয়ে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত— শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করল তৃণমূল সরকার,এবার থেকে তিনটি গুরুত্বপূর্ণ দফতরের সব দায়িত্ব সামলাবেন মুখ্যমন্ত্রী নিজেই। শুক্রবার সকালেই প্রায় Z ক্যাটাগরির সরকারি নিরাপত্তা ছেড়েছেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন সকালেই পাইলট কার ও এসকর্টও ছেড়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন নন্দীগ্রামের তৃণমূল বিধায়ক।

নিজের নিরাপত্তা ছাড়ার প্রক্রিয়া শেষ হতেই সমস্ত জল্পনাকল্পনার অবসান ঘটিয়ে মন্ত্রিত্বের পদ থেকেও সরে দাঁড়ান শুভেন্দু। তারও কিছু সময় পর হলদিয়া ডেভেলপমেন্ট অথরিটির চেয়ারম্যানের পদ থেকেও সরে দাঁড়ান তিনি।
উল্লেখ্য যে, রাজ্য মন্ত্রিসভায় পরিবহণ, সেচ এবং জলসম্পদ দফতরের মন্ত্রী ছিলেন তিনি৷ কিন্তু সেই সমস্ত গুরুত্বপূর্ণ পদ থেকে এদিন সকালেই ইস্তফা দেন নন্দীগ্রাম আন্দোলনের নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

আর ঠিক এরপরেই তৃনমূলের শীর্ষ নেতাদের নিয়ে বৈঠকের ডাক দেন তৃনমূল সুপ্রিমো তথা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। এদিন বৈঠকের আগেই শুভেন্দুর পদত্যাগ পত্র গ্রহণ করেন মুখ্যমন্ত্রী। নবান্ন সুত্রে জানা গিয়েছে যে, মুখ্যমন্ত্রীর সুপারিশেজ শুভেন্দু অধিকারীর পদত্যাগপত্র গ্রহণ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। তাঁকে এখনই দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন তিনি।

এরই সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর হাতে থাকা ৩টি দফতরের সমস্ত দায়িত্ব আপাতত তিনি নিজেই দেখবেন বলে রাজ্যপালকে জানিয়েছেন। সেচ, পরিবহণ এবং জলসম্পদ রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ তিনটি দফতর এতদিন শুভেন্দু অধিকারীর হাতেই ছিল। কিন্তু এই তিন দফতরই এখন থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দেখবেন। রাজ্যের যে কোনও মন্ত্রীর ইস্তফা গ্রহণ করার চূড়ান্ত অধিকার থাকে রাজ্যপালের কাছে। মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শে সেই দায়িত্ব পালন করেন তিনি। তাই এবারও তাই করলেন রাজ্যপাল।

শুক্রবার সন্ধ্যায় রাজভবন থেকে প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর সুপারিশেই শুভেন্দু অধিকারীর দেওয়া ইস্তফা গ্রহণ করেছেন রাজ্যপাল। অন্যদিকে দলীয় সূত্রের খবর, শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে দলের ভবিষ্যত সম্পর্ক নিয়েও আজ শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে বসে কিছু গুরুত্বপূর্ণ ও তাৎপর্যপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তৃনমূল নেত্রী৷ এদিন সকাল থেকে শুভেন্দু অধিকারী মন্ত্রিত্ব থেকে ইস্তফা দেওয়ার পরও শোনা যাচ্ছিল যে, তৃণমূলের পক্ষ থেকে আবারও শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে আলোচনায় বসার কথা৷

কিন্তু আজ শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে দীর্ঘ বৈঠকের পর সুপ্রিমোর কড়া বার্তা, দলের তরফ থেকে আপাতত কেউই শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে কোনও যোগাযোগ করবে না, এমনটাই সূত্রের খবর৷ এদিকে নবান্ন সূত্রে জানা গেছে, শুভেন্দু অধিকারীর তিনটি দফতর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর দায়িত্বেই থাকছে। এখনো পর্যন্ত এই পদে অন্য কোনো মন্ত্রীকে দায়িত্ব অর্পণ করা হয়নি। জানা গিয়েছে, প্রশান্ত কিশোরের উপস্থিতিতেই মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে প্রায় দেড় ঘণ্টা মত বৈঠক করলেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত বক্সী, অরূপ বিশ্বাস, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

প্রায় দেড় ঘণ্টা মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে বৈঠক শেষে ঠিক কি আলোচনা হলো, সে বিষয় যদিও কোনো মন্ত্রী বা দলের তরফে সাংবাদিকদের কিছুই জানানো হয়নি। তবে জানা গিয়েছে যে, সেই সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর সংগঠনে অধীনে থাকা জেলার দায়িত্বে নতুন কাউকে নিয়োগ করা হয়নি। তৃণমূল কংগ্রেসের তরফে শুভেন্দু অধিকারী পদত্যাগপত্র গ্রহণ করা হয়েছে। আগামীকাল তৃণমূল ভবনে বিকেল চারটে নাগাদ মালদা সংগঠনকে নিয়ে আবারও বৈঠক করবেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। তবে
আগামী দিনে শুভেন্দু অধিকারীর ভূমিকা কি হতে চলেছে তার ওপর তীক্ষ্ণ নজর রাখছে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: