বঙ্গ রাজনীতিতে শুরু হয়েছে দলবদলের খেলা, দলের বিরুদ্ধে এক এক করে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন বহু নেতা-কর্মীই

HnExpress ১৮ই ডিসেম্বর, নিজস্ব প্রতিনিধি, বীরভূম ঃ ২১শে আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন, তার আগেই বঙ্গ রাজনীতিতে শুরু হয়েছে দলবদল এর খেলা। দলের বিরুদ্ধে এক এক করে ক্ষোভ উগড়ে দিচ্ছেন বহু নেতা-কর্মী। সম্প্রতি বঙ্গ রাজনীতি তোলপাড় হচ্ছে নন্দীগ্রাম এর প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীকে নিয়ে। সুত্রের খবর, অবশেষে তৃণমূল কংগ্রেসের দল ত্যাগ করছেন পূর্ব মেদিনীপুরের বিধায়ক তথা প্রাক্তন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী সহ পশ্চিমবঙ্গের বিভিন্ন জেলার বেশ কিছু তৃণমূল নেতা-কর্মী।

আবার কেউ কেউ দলে থাকলেও, সেই দলেরই বিরুদ্ধে উগড়ে দিচ্ছেন তাদের বহুদিনের জমে থাকা ক্ষোভ। ফলে এক কথায় বলা যেতে পারে, আগামী নির্বাচনের আগে বেশ অস্বস্তিতে রয়েছে ঘাসফুল। ১৬ই ডিসেম্বর বিধানসভায় গিয়ে অধ্যক্ষের অনুপস্থিতিতে পদত্যাগ পত্র জমা দিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী, যদিও তা বৈধ বলে গ্রহণ করা হয়নি। কিন্তু ঠিক তার পর দিনই বীরভূম জেলার বোলপুর এর তৃণমূল নেতার বিতর্কিত ফেসবুক পোস্ট ঘিরে সৃষ্টি চাপা উত্তেজনার।

বীরভূম জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সহ সভাপতি তথা বীরভূম জেলার যুব কংগ্রেসের প্রাক্তন সভাপতি হলেন সুদীপ্ত ঘোষ। তিনি গত বুধবার রাতে তাঁর ফেসবুক একাউন্ট থেকে একটি পোস্টে করেন, যাতে লেখা ছিল “অহংকার পতনের কারণ। মানুষকে মানুষের সম্মান দিতে হবে, রাজনীতি পরে। ভাইপোকে পিছনের সারিতে রাখতে হবে”, এই পোষ্টের মাধ্যমে কার্যত সরাসরি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কেই নিশানা করা হয়েছে।

যদিও সুদিপ্ত ঘোষ জানিয়েছেন, তার আইডি নাকি হ্যাক হয়ে ছিল। তিনি এই বিষয় কিছুই জানতেন না, এই ধরনের কোনো পোস্ট করা তো দূরের ব্যাপার। তিনি আরও বললেন যে, আমি প্রথম থেকেই তৃণমূল কংগ্রেসে ছিলাম, আছি এবং থাকব। কিন্তু তবুও রাজনৈতিক মহলে প্রশ্ন উঠছেই, খোদ অনুব্রত মন্ডলের খাসতালুকে থাকা অনুব্রত ঘনিষ্ঠ এই নেতাও কি তাহলে দল বদলের চিন্তা করছেন?

Leave a Reply

%d bloggers like this: