কিংবদন্তী তারকা দিলীপ কুমারকে শেষ শ্রদ্ধা জানালো বলিউড সিনে জগত

HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি ঃ বলিউড ইন্ড্রাষ্টিতে আবারও এক নক্ষত্রপতন। একদা সুপারস্টার তথা লিজেন্ড তারকা দিলীপ কুমারের মৃত্যুর খবরে শোকসন্তপ্ত গোটা সিনে জগত। বুধবার সকাল সাড়ে ৭টা নাগাদ মুম্বইয়ের পিডি হিন্দুজা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। যার আসল বা জন্ম নাম মহঃ ইয়ুসুফ খান। যিনি “ট্রাজেডি কিং” নামেও সুপরিচিত। এবং সত্যজিৎ রায়ের মতন কিংবদন্তি বাংলা চলচ্চিত্র নির্মাতার মতে সর্বশেষ তিনি ছিলেন রচনাশৈলী একজন গুণী অভিনেতা।

এদিন এই প্রবীণ কিংবদন্তি তারকার শেষযাত্রায় হাজির ছিলেন বলিউডের বাদশা শাহরুখ খান, প্রবীণ অভিনেতা ধর্মেন্দ্র, বিদ্যা বালান, সিদ্ধার্থ রায় কাপুর থেকে শুরু করে বহু নবীন ও প্রবীণ অভিনেতা অভিনেত্রী এবং কলাকুশলীরা। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৮ বছর। অভিনেতার মৃত্যুর পর তাঁর দেহ হাসপাতাল থেকে সোজা মুম্বইয়ের নিজ বাসভবনে আনা হয়। দিলীপ কুমার ১৯৪৪ সালে বোম্বে টকিজের ব্যানারে “জোয়ার ভাটা” চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্র জগতে পদার্পণ করেন।

এদিন অভিনেতাকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে তাঁর বাসভবনে হাজির হয়েছিলেন আনিল কাপুর, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধভ ঠাকরে, তাঁর ছেলে আদিত্য ঠাকরে সহ অন্যান্যরা। অন্যদিকে পরিচালক তথা প্রযোজক করণ জোহরকেও এদিন বর্ষিয়ান অভিনেতার মুম্বইয়ের বাড়ির বাইরে দেখা যায়। অগুনতি সিনেমায় দক্ষতার সঙ্গে অভিনয় করে গেছেন তিনি। তাঁর অভিনীত বিখ্যাত সিনেমা গুলি হল— ঐতিহাসিক চলচ্চিত্র মোগল-ই-আজম, রাম ওউর শ্যাম, দেবদাস, মধুমতী, আন্দাজ, আন, আজাদ, সওদাগর।

এছাড়াও স্ত্রী সায়রা বানুর সাথেও রয়েছে বহু চলচিত্র, যার মধ্যে রয়েছে বাংলায় বিখ্যাত সিনেমা সাগিনা মাহাত। শ্রেষ্ঠ অভিনেতা হিসেবে তিনি ৮ বার ফিল্মফেয়ার পুরস্কার পদক পেয়েছেন। ১৯৯৪ সালে দাদাসাহেব ফালকে পুরস্কারেও ভূষিত হন। এছাড়াও ১৯৯১ এ পদ্মভূষণ, ১৮৯৯৮ এ নিশান-ই-ইমতিয়াজ, ২০১৫ সালে পদ্মবিভূষণ সম্মাননা পান। একজন সফল রাজনীতিবিদ হিসেবে ২০০০ সাল থেকে ২০০৬ পর্যন্ত রাজ্যসভার সদস্য ছিলেন তিনি।

Leave a Reply

%d bloggers like this: