দাদার হাতে ভাইয়ের খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা তুঙ্গে

HnExpress ১৪ই অক্টোবর, সুদীপ ঘোষ, নদীয়া ঃ দাদার হাতে ভাইয়ের খুনের ঘটনাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা তুঙ্গে। নবদ্বীপ থানার চরব্রহ্মনগর কার্গিল কলোনির এই ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্য দেখা দিয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, মৃতের নাম সুজিত দেবনাথ (৩০)। তাঁঁর বাড়ি চরব্রহ্মনগর বউবাজার স্কুলপাড়ায়। এই ঘটনায় এদিন পুলিশ দাদা বাপ্পা দেবনাথকে গ্রেফতার করেছে। স্থানীয় ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বাপ্পা ও সুজিত সম্পর্কে জ্যাঠতুতো দাদা-ভাই।

এই দুজনেই মুম্বাইয়ের একটা হোটেলে শ্রমিকের কাজ করত৷ লকডাউনের মধ্যেই তারা মুম্বই থেকে বাড়ি ফিরে আসে৷ সুজিত দেবনাথ লকডাউনের মধ্যে আর্থিক সমস্যায় বাড়ির পাশে একটি চায়ের দোকান করে। বাপ্পা দেবনাথ ফিরে সেই অর্থে কিছু করেনি। বুধবার মুম্বাইয়ে ফেরার উদ্দেশ্যে টিকিট কেটেছিল। মঙ্গলবার বেলা থেকে সে বাড়ির কাছে একটি বাগানে বসে মদ খায়। বেশি রাতে সুজিত বাড়ির বাইরে বের হয়। অভিযোগ, তখন জ্যাঠতুতো মদ্যপ দাদা বাপ্পা দেবনাথ ও তার বন্ধুরা খিস্তি খেউড় করে।

সুত্রে আরও জানা গেছে, এই নিয়ে তাদের মধ্যে হাতাহাতি শুরু হয়ে যায়। তারপরই সুজিতকে বাড়ির পাশে টেনে নিয়ে গিয়ে ধারাল অস্ত্র দিয়ে কোপানো হয়। রাতেই খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। রক্তাক্ত যুবককে উদ্ধার করে মহেশগঞ্জ গ্রামীন হাসপাতালে নিয়ে যায়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে। এই ঘটনায় পুলিশ স্থানীয়দের অভিযোগ পেয়ে অভিযুক্ত দাদা বাপ্পা দেবনাথকে বুধবার গ্রেফতার করে।

কিন্তু ঠিক কি কারণে এই খুন তা নিয়ে পুলিশ তদন্ত শুরু করেছে। যদিও পুলিশের প্রাথমিক অনুমান, মদ্যপ অবস্থায় থাকার জন্যই এই খুনের ঘটনা ঘটেতে থাকতে পারে। তবে পরিবার সূত্রে জানা গেছে যে, দুজনের মধ্যেই পারিবারিক বিবাদ ছিল। বাপ্পা দেবনাথের কাছে সুজিত দেবনাথ বেশকিছু টাকাও পেত। এই টাকা ফেরত চাওয়া নিয়ে বিবাদ হতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। পুলিশ অবশ্য সব দিক খতিয়ে দেখছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: