রাজস্থানে অস্বাভাবিক মৃত্যু হলো মালদার পরিযায়ী শ্রমিক এর



HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, মালদা ঃ সংসার চালানোর তাগিদে লকডাউন এর পরে কাজের খোঁজে গিয়েছিল মালদার হরিশ্চন্দ্রপুর এলাকার এক পরিযায়ী শ্রমিক। গত শনিবার সেখানে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। মৃত ওই পরিযায়ী শ্রমিক এর নাম আলী মর্তুজা, বয়স ২১। বাড়ি হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার ভিঙ্গল অঞ্চলের মিসকিনপুর গ্রামে। বাড়িতে তার স্ত্রী এবং ২৪ দিনের এক কন্যা সন্তান রয়েছে।

গত শনিবার বিকেলে রাজস্থানের আজমির শহরে ভাড়া বাড়িতে তার ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। মৃত্যুর কয়েক ঘন্টা আগেও স্ত্রীর সঙ্গে কথা হয়েছে বলে জানায় ওই মৃত শ্রমিকের পরিবার। তবে ওই পরিযায়ী শ্রমিক এর মৃত্যু নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে তাঁর পরিবার। এটা কি আত্মহত্যা না খুন? কিছুই বোঝে উঠতে পারছেন না তাঁর পরিবার। জানা যায়, আলী মর্তুজা ১৫ দিন আগে আজমীর শরীফের গিয়েছিল কাজের উদ্দেশ্যে। সেখানে দিনের বেলা নির্মাণ শ্রমিকের কাজ করতো।

এক বছর আগেই বিয়ে হয়েছিল মর্তুজার। তাদের একটি ২৪ দিনের কন্যা সন্তানও আছে। গত শনিবার আজমীর শরীফ থেকে দুপুরবেলা স্ত্রীর সঙ্গে মোবাইলে শেষ কথা হয়। তারপরই আসে এই রহস্যজনক মৃত্যুর খবর। স্ত্রী সামিনা খাতুন জানান, গত শনিবার দুপুরবেলা আমার সঙ্গে ফোনে অনেকক্ষণ কথা হয়েছে। তখন আমার স্বামী আমাকে জানায় ওখানে কিছু লোক ওকে চোর অপবাদ দিয়েছে। ও মানসিক ভাবে ভেঙে পড়েছিল।



তারপরই রাত্রে তাঁর মৃত্যুর খবর পাই। তাঁর মৃত্যু নিয়ে আমাদের অনেক প্রশ্ন আছে। আমরা মনে করছি আমার স্বামীর মৃত্যু স্বাভাবিক নয়। আমার স্বামী আত্মহত্যা করতেই পারে না। এ প্রসঙ্গে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা আইসি সঞ্জয় কুমার দাস জানান, ওই পরিযায়ী শ্রমিকের মৃত্যুর ঘটনা সম্পর্কে আমরা জানতে পেরেছি যে সে আত্মহত্যা করেছে। কিন্তু কেন এই আত্মহত্যা তার কোনো কূলকিনারা কেন পাওয়া যায়নি। তদন্ত চলছে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: