হরিয়ানার এক বেসরকারি হাসপাতালের আইসিসিইউ’তে ধর্ষণের শিকার তরুণী, অভিযুক্ত এখনো অধরা

HnExpress ৩১শে অক্টোবর, নিজস্ব প্রতিনিধি, হরিয়ানা ঃ হরিয়ানার গুরুগ্রামের ফর্টিস হাসপাতাল দেশের অন্যতম খরচসাপেক্ষ একটি হাসপাতাল। আধুনিকতম চিকিৎসা ও নিরাপত্তাগত সুযোগ সুবিধার যুক্তিতে রোগীর পরিবারকে মোটা টাকা চার্জ করে থাকেন এঁরা। অথচ এখানেই আইসিসিইউ’য়ের মত জায়গায় একটি জরুরিকালিন ওয়ার্ডে এক তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠল। জানা গিয়েছে, ২১ বছর বয়সী এই তরুণী শ্বাসকষ্টের কারণে ২১শে অক্টোবর হরিয়ানার ফর্টিস হাসপাতালে ভর্তি হন।

তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে পরদিন তাঁকে আইসিসিইউ’তে ভেন্টিলেটরে দেওয়া হয়। ভেন্টিলেটরে যখন তিনি আচ্ছন্ন অবস্থায় ছিলেন, ঠিক সেই সময় তাঁর অসহায়তার সুযোগ নিয়ে তাঁর ওপর শারীরিক নির্যাতন চালায় বিকাশ নামে ফর্টিস হাসপাতালের এক জনৈক কর্মী। বিকাশ ওই হাসপাতালেই অস্থায়ী কর্মী, তাঁকে বাইরে থেকে এই কাজে নিযুক্ত করা হয়ে ছিল বলে জানা গেছে।

এই ঘটনার ৬ দিন পর জ্ঞান ফিরে পেয়ে মেয়েটি তার বাবাকে সব কিছু বলে দেয়। মেয়েটির অভিযোগ, ২১ থেকে ২৭ অক্টোবরের মধ্যে তাঁর ওপর শারীরিক নির্যাতন চলেছে। সেই মর্মেই পুলিশ হাসপাতালের সিসিটিভি ফুটেজ খতিয়ে দেখছে। এদিকে তদন্তে যা বেরিয়ে এসেছে তা হল, অভিযুক্ত বিকাশ হাসপাতালের নিজস্ব কর্মী নয়। তাকে বাইরে থেকে আনা হয়ে ছিল। তবে এখনও তাকে গ্রেফতার করা যায়নি।

যদিও অভিযোগকারিণী এখনও ভেন্টিলেটরেই, ফলে তাঁর বয়ান নিতে পারেনি পুলিশ। ফর্টিস হাসপাতাল জানিয়েছে, তদন্তে তাঁরা সবরকম সহায়তা করবে। এ ধরনের ঘটনা কোনো মতেই বরদাস্ত করা হবে না। হরিয়ানার গুরুগ্রামের ফর্টিস হাসপাতালে আইসিসিইউ’তে ভর্তি এক তরুণী ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। অভিযোগ, তিনি যখন ভেন্টিলেশনে ছিলেন তখনকার অচেতন অবস্থার সুযোগ নিয়ে হাসপাতালের এক কর্মী ধর্ষণ করেছে তাঁকে।

যদিও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানিয়েছেন, তাঁরা এ ব্যাপারে পুলিশে যোগাযোগ করেছে, তদন্তে সবরকম সহযোগিতা করতে তাঁরা পুরোদস্তুর তৈরি। ধর্ষক বা খুনীর কোন জাত বা ধর্ম হয়না। তারা শুধুমাত্র একজন অপরাধী। তারা মানুষ নামেরও অযোগ্য! কিন্তু আজকাল আমরা এই সত্যিটা প্রায় ভুলতে বসেছি। তবে অবিলম্বে এই নরখাদক অপরাধীর দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবীতে সোচ্চার হয়ে উঠেছে গোটা নেট দুনিয়া।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: