আসন্ন বিধানসভা ভোট উপলক্ষে রাজারহাট গোপালপুরে আয়োজিত জনসভায় মানুষের ঢল—

HnExpress প্রিয়দর্শী সাধুখাঁ, রাজারহাট ঃ জয়ের লক্ষ্য নিয়ে ২১ এর ভোটে তৃনমূল সরকার ভোট যুদ্ধে প্রস্তুত। দিকে দিকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর সহযোদ্ধারা ভোটের প্রচারে প্রানপন লড়াইয়ে মত্ত। কারন তাঁরা জানেন “বাংলা তার নিজের মেয়েকেই চায়”। তাই আবার একসাথে রাজারহাটের নবরূপকার রাজ্যের গুরুত্বপূর্ণ কারিগরি শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও দক্ষতা উন্নয়ন মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসু, রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন এবং রাজ্য তৃণমূল কংগ্রেসের জনপ্রিয় মুখপাত্র দেবাংশু ভট্টাচার্য এদিন রাজারহাট গোপালপুরের জনসভায়
রীতিমতো কাঁপিয়ে সভা করলেন।

প্রথাগত ভাবেই সঠিক সময়ে আরম্ভ হবার পর দেখা যায় তৃনমূলের পতাকার পাশে বিজেপির পতাকা। সেই নিয়ে পূর্ণেন্দু বসু বলেন, আজ যদি চাইতাম ছেলেদের বলতাম যে বিজেপির পতাকাগুলি খুলতে, এক মিনিটও সময়ে লাগতো না। কিন্তু আমরা নোংরা রাজনীতি করি না। তাই ওদের পতাকা খুলে দিয়ে ছুঁচো মেরে হাত গন্ধ কর‍তে চাই না”। বিজেপিকে আটকাতে গোপালপুরে জনসভায় দেখা যায় জনমানুষের ঢল। মন্ত্রী পূর্ণেন্দু বসুর পর রাজ্যসভার সাংসদ দোলা সেন মঞ্চ কাঁপালেন। তিনি বলেন ” ওদের স্বাগত জানাই। ওরা স্বপ্নই দেখুক। আপকি বার, দোশো বার। স্বপ্ন দেখো আমাদের আপত্তি নেই।

তিনি আরও বলেন, তোমরা আসো, গাল দাও। কিন্তু আমরা জানি, শকুনের পাপে গরু মরে না। আমরা এখানে এসে ওদের পতাকাতে আমাদের পতাকা লাগাইনি। ওরা নাকি কাল মাঝরাতে ওদের পতাকা লাগিয়ে দিয়ে গেছে। পতাকার লড়াইতে আমরা জিততে চাই না”। লোকসভা নির্বাচনের পর মাত্র মাস তিনেক দলে এসেছেন নব্য নেতা দেবাংশু ভট্টাচার্য। মুখপাত্র পদে রয়েছেন তিনি। টিভি-বিতর্কেও দলের হয়ে
একাধিক বার প্রতিনিধিত্ব করেন বালির বাসিন্দা দেবাংশু ভট্টাচার্য। সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং নিয়ে পড়াশোনা করার পর এখন তিনি দলের কাজেই মন দিয়েছেন। সামনে ২১ এর ভোট উপলক্ষে রাজারহাট গোপালপুরে জনসভায় বক্তা হয়ে তিনিও মাতিয়ে দিলেন।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: