রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় গ্রেপ্তার প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা রাজ্যের বর্তমান বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক

HnExpress ২৭শে অক্টোবর রাজ মল্লিক, কলকাতা : রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় ইডির হাতে গ্রেপ্তার রাজ্যের বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক ওরফে বালু। প্রায় ২১ ঘন্টা টানা জেরা, জিজ্ঞাসাবাদ, তল্লাশির পর অবশেষে গ্রেপ্তারির সিদ্ধান্ত ইডির। বৃহস্পতিবার দিনভর ম্যারাথন তল্লাশি চলে মন্ত্রীর একাধিক বাড়িতে। টানা তল্লাশি এবং জিজ্ঞাসাবাদের পর সল্টলেকের বাড়ি থেকে রাত সাড়ে ৩টে নাগাদ তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সেখান থেকে তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় ইডির দপ্তর অর্থাৎ সিজিও কমপ্লেক্সে।

রাতে গ্রেপ্তারির পর সেই প্রসঙ্গে মন্তব্যও করেন বনমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয়। তাঁর দাবি, এবার তিনিও ষড়যন্ত্রের শিকার হলেন। এদিন তিনি ক্ষোভ উগড়ে দিয়ে বলেন, বিজেপি ও শুভেন্দু অধিকারীরাই এই চক্রান্তের মুলে রয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য যে, রেশন বন্টন দুর্নীতি মামলায় বৃহস্পতিবার সকালেই রাজ্যের প্রাক্তন খাদ্যমন্ত্রী তথা বর্তমানে রাজ্যের বনদপ্তরের মন্ত্রীর একাধিক বাড়িতে যান কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা ইডি’র তদন্তকারী আধিকারিকরা।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নিরাপত্তার স্বার্থে তাঁর সল্টলেকের বাড়ির বাইরে মোতায়েন করা হয়েছিল কেন্দ্রীয় বাহিনী। রাত বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই বাড়ির সামনে বাড়ানো হয় কেন্দ্রীয় বাহিনীর পরিমাণও। দলীয়কর্মী ও সমর্থকদের ভিড় সামলানোর জন্যই মন্ত্রীর বাড়ির সামনে বসানো হয়েছিল ব্যারিকেড। রাতে পুলিশকে এলাকার ভিড় সরানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল বলেও সূত্রের খবর।

বৃহস্পতিবার সকাল ৬টা থেকে ম্যারাথন তল্লাশি শুরু হয়, টানা জিজ্ঞাসাবাদের পর রাত সাড়ে ৩টে নাগাদ তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়। সল্টলেকের বাড়ি থেকে ইডি দপ্তর নিয়ে যাওয়ার সময় জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক বলেন, গভীর ষড়যন্ত্রের শিকার হলাম আমি, এটাই শুধু বলে গেলাম। ভারতীয় জনতা পার্টি খুব ভাল কাজ করেছে। এই চক্রান্ত শুভেন্দু অধিকারীর, সোজাসুজি অভিযোগের আঙ্গুল বিজেপির দিকে।

রেশন বণ্টন দুর্নীতি মামলায় এই প্রথম কোনও মন্ত্রীকে গ্রেপ্তার করা হল। আজ সকালে তাঁর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করা হয় জোকা ইএসআই হাসপাতালে, তারপরে সেখান থেকেই নিয়ে গিয়ে তোলা হয় বানশাল কোর্টে। সূত্রের খবর, প্রথমে ১৪ দিনের পরে কমিয়ে ১০ দিনের ইডি হেফাজতের নির্দেশ দিয়েছে আদালত। উল্লেখ্য, বৃহস্পতিবার মন্ত্রীর বাড়িতে ইডির তল্লাশি চালানোর সময়ই সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়েছিলেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি জ্যোতিপ্রিয়ের বাড়িতে তল্লাশি প্রসঙ্গে ক্ষোভ প্রকাশ করে হুশিয়ারি দিয়ে বলেন, “বালু খুবই অসুস্থ, ওর কিছু হয়ে গেলে আমি বিজেপির বিরুদ্ধে এফআইআর করবো।” এদিকে আজ আদালতে সওয়াল জবাবের মাঝেই অসুস্থ হয়ে আদালতের মাটিতেই জ্ঞান হারিয়ে লুটিয়ে পড়েন জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। সুগার লেভেল অনেকটাই হাই, সাথে পা’ও ফুলে গেছে। এই দুর্নীতির কেলেঙ্কারিতে মন্ত্রীর স্ত্রী ও কন্যাও জড়িত রয়েছে, এমনটাই দাবি ইডির আইনজীবীর। কোটি কোটি টাকার হিসেবে গরমিল পেয়েছেন ইডির তদন্তকারী আধিকারিকরা।

Comments

Leave a Reply