বেআইনি নেশা মুক্তি কেন্দ্রে চিকিৎসার নামে ব্যাপক মারধরের জেরে মাদকাসক্ত যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ সহ দেহ লোপাটের চেষ্টা



HnExpress বিশ্বজিৎ মন্ডল, মালদা ঃ নেশামুক্তি কেন্দ্রে এক মাদকাসক্ত যুবককে বেধরক মারধর করে মেরে ফেলার অভিযোগ উঠেছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানার তুলসীহাটা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার তুলসীহাটা নেশা মুক্তি কেন্দ্রের কর্নধার সহ অভিষেক মুরারকা ও তার কর্মচারীদের বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে গত রবিবার। মৃত যুবকের নাম শওকত আলী (৩২)।

বাড়ি হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকার সদলিচক গ্রাম পঞ্চায়েতের তালগ্রাম হাটে। এমনকি সেই মাদকাসক্ত যুবকের দেহ লোপাট করার অভিযোগও উঠেছে ওই কেন্দ্রের বিরুদ্ধে।এদিন যুবকটির দেহ পরিক্ষা করার জন্য হরিশচন্দ্রপুর গ্রামীণ হাসপাতালে নিয়ে গেলে হাসপাতালের কর্তব্যরত বেআইনি নেশা মুক্তি কেন্দ্রে চিকিৎসার নামে ব্যাপক মারধরের জেরে মাদকাসক্ত যুবকের মৃত্যুর অভিযোগ সহ দেহ লোপাটের চেষ্টা মৃতদেহ পরীক্ষা করার আগেই ওই ব্যক্তির দেহ গাড়িতে করে নিয়ে চম্পট দেয় কেন্দ্রের কর্মকর্তারা, এমনটাই অভিযোগ।



ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশের একটি দল তুলসিহাটায় তদন্তে গেলে মৃত দেহ লুকিয়ে ফেলার চেষ্টা করা হয়। এমনকি তড়িঘড়ি করে মৃতদেহটি পরিবারের লোকের হাতে তুলে দেওয়া হয় এবং পরিবারটিকে হুমকি দেওয়া হয় যেন প্রকাশ্যে মুখ না খোলে। পরিবারের লোকেরা দেরি না করে মৃতদেহ কবরস্থ করে দেয় বলে সুত্রের খবর। হুমকির ভয়ে নেশা মুক্তি কেন্দ্রের কর্মকর্তাদের চাপে ওই মৃত ব্যক্তির পরিবার পুলিশের কাছেও কোনো অভিযোগ জানায়নি।

করা হয়নি দেহটির ময়নাতদন্তও। এই ঘটনা নিয়ে নেশা মুক্তি কেন্দ্রের কর্ণধারের একটি অডিও রেকর্ডিং ভাইরাল করা হয়েছে। গোটা ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে হরিশ্চন্দ্রপুর থানা এলাকায়। সব জেনেও পুলিশ প্রশাসন কেন চুপ রয়েছে এই নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন এলাকার স্থানীয় বাসিন্দা সহ রাজনৈতিক দলের নেতারা। পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে শেষকৃত্য করে দেওয়া হয়েছে মৃত যুবকের।

নিজস্ব চিত্র।

স্থানীয় বাসিন্দা এবং তৃণমূল-বিজেপি সহ একাধিক দলের রাজনৈতিক নেতাদের দাবি অবিলম্বে ওই নেশা মুক্তি কেন্দ্র বন্ধ করা হোক এবং ওই ব্যক্তির মৃতদেহ কবর থেকে তুলে ময়নাতদন্ত করা হোক। তাহলেই প্রকৃত সত্য সামনে উঠে আসবে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: