লকডাউনের মধ্যেই নদীয়ায় ঘটে গেলো এক অমানবিক ঘটনা

HnExpress ১৭ই এপ্রিল, সুদীপ ঘোষ, নদীয়া ঃ গোটা দেশ তথা রাজ্য জুড়ে করোনা মোকাবিলায় ২১ এর লকডাউনের মধ্যেই তার মেয়াদ বাড়তে বাড়তে এসে দাঁড়ালো ৩রা মে অব্দি। আর এই সংকটকালিন পরিস্থিতিকে রীতিমতো বাগে আনতেই লকডাউনের উৎপত্তি। কিন্তু লকডাউনের  মধ্যেই নদীয়ার বুকে ঘটে গেল এক অমানবিক ঘটনা। গত বৃস্পতিবার রাতে আনুমানিক সন্ধ্যে সাড়ে সাতটা নাগাদ এক অজ্ঞাত পরিচয় মহিলার ক্ষতবিক্ষত দেহ উদ্ধার হয় নদীয়া জেলার অন্তর্গত ভালুকার মাদার তলার রাস্তায়।

 

 

তবে যে কি কারণে এই নৃশংস হত্যা তা এখনো স্পষ্ট হয় নি। কিন্তু পুলিশের প্রাথমিক তদন্তে জানা গেছে যে, ওই মহিলাকে প্রথমে ধর্ষণ করে, তারপর গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। তবে কি কারণে যে এই খুন এবং এই মহিলাই বা কে, সে বিষয়ে স্থানীয় কেউ কিছুই জানাতে পারেনি। তবে অনুমান করা যাচ্ছে যে, কোনো কিছুর গোপন তথ্য জেনে ফেলার কারণেই হয়তো তাঁকে ধর্ষণ করে হত্যা করা হয়েছে।

 

 

এবং এই নৃশংসভাবে হত্যার পরে কেউ যাতে চিনতে না পারে সেই কারণে মহিলার মুখ থেতলে দেওয়ার চেষ্টা করে তাকে রাস্তার ধারে ফেলে দেওয়া হয়েছে, এমনটাই বললেন স্থানীয় সিপিআইএম নেতা প্রবীর মিত্র। এদিন প্রবীর বাবু আরও বলেন যে, ওই অজ্ঞাত পরিচয়ের মহিলাকে পিঠে দুটি গুলি করে মারা হয়েছে। তবে সঠিক কি কারনে খুন তা এখন অব্দি তদন্ত স্বাপেক্ষ। মৃতদেহটিকে মর্গে পাঠানো হয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য। অন্যদিকে চলছে পুলিশের খানাতল্লাশি, যদিও এই কেসের তদন্ত নিয়ে সাংবাদিকদের কাছে মুখ খোলেননি থানার অফিসার।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: