Mon. Dec 9th, 2019

চার দেওয়ালের মাঝে শীতের শিল্প উৎসব, রবিবারের বৈঠকী আড্ডা

HnExpress দিব্যেন্দু ঘোষ, একটু অন্যরকম আড্ডা ঃ প্রকৃতি যখন চার দেওয়ালে ধরা দেয়, কিংবা চার খোপে। ঘন সবুজ যখন মনুষ্যত্বের ধূসর বাগানে জল-ছায়ায় মমতার মায়া মাখায়। কিংবা হারিয়ে যাওয়াকে না-হারাতে দেওয়া। হেমন্তের চলে যাওয়া আর শৈতিক আগমনের সন্ধিক্ষণ যখন প্রফুল্লতার প্রলেপ মাখায়। নবীন প্রজন্মের অনাড়ম্বর সৃষ্টিতে যখন মিশে থাকে ভবিষ্যতের সব অধ্যায়। তখনই বোধহয় তানপুরার তারে সাফল্যের শিহরণ বয়ে যায়। সুর-তাল-লয়ের কাব্যিক মাধুর্যে ভেসে যায় আইসিসিআরের আর্ট গ্যালারি।

প্রকৃতি আজ বড় অভিমানী। দুনিয়ার শ্রেষ্ঠ জীবের নাশকতায় মন বিষণ্ণ। অবলা প্রাণের ওপর যখন ধ্বংসের কুঠারাঘাত নেমে আসে, তখন ওদেরও বুক ভেসে যায় অলকানন্দার জলে। বৈরিতা নয়। বরং মানুষ ও প্রকৃতির প্রণয়ই দস্তুর। ক্যানভাসে সেই সম্পর্কের বীজ বুনেছেন কয়েকজন নবীন-মনা কারিগর। রং, তুলি, পেনসিলে যেন বারবার ফুটে উঠছে নবীন সূর্যের সবুজালি আভা। ল্যান্ডস্কেপে ইতিমধ্যেই প্রাণ প্রতিষ্ঠায় সফল সৈকত মণ্ডল। তাঁর দ্বৈত ছবিতে প্রকৃতির আলাপন।

রাকেশ মালিকের ক্যানভাসে ছড়িয়ে পড়েছে কী আশ্চর্য সব রঙিন কোলাজ। প্রকৃতি তার রূপের ডালি নিয়ে হাজির। দেওয়ালে টাঙানো ছবির অন্তরমহল যখন বারবার প্রকৃতির পানে ধাবিত, অন্যদিকে তখন কালি ও কলমের প্রণয়পাশা রচিত হয়েছে হস্তলেখের মানভঞ্জনে। ডিজিটাল যুগেও কিছুতেই হারিয়ে যেতে দেওয়া যাবে না হাতের লেখাকে। পণ করেছেন নির্ঝর মণ্ডল। আঙুল, কলম আর মননের যৌথতায় বুনেছেন অক্ষর। নিপুণ ভালবাসায়। ঘন লাল আর নীলের আবহে যেন মহাশূন্যে ভাসিয়ে দিয়েছেন অক্ষরমালা। ভিন্ন চরিত্রে জীবন্ত হয়ে উঠেছে অক্ষররাজি।

“কাগজে লেখো নাম, সে নাম মুছে যাবে
যদি হৃদয়ে লেখো নাম, সে নাম রয়ে যাবে।”
না, কাগজও এখন হৃদয়ে রয়ে যাচ্ছে। ভালবাসার বন্ধনে। প্রেমের আতিশয্যে। নারীমনে আহ্লাদ জেগে ওঠে গয়নার কথা শুনলেই। গয়নার প্রতি নারীর প্রেম চিরকালীন। প্রেম, ভালবাসা, আদরে মাখা। এমনই প্রেমময় আদরে গয়না গড়েছেন অঙ্কিতা। হ্যান্ডমেড পেপারের গয়না। মূল্যহীন নয়, অমূল্য। দামে নয়, পরম্পরায়। প্রকৃতি থেকে তুলে আনা রং গায়ে মেখে কাগজের বুকে প্রেমের নৌকা ভাসিয়েছেন অঙ্কিতা।

২২ থেকে ২৪ নভেম্বর এমনই সব দুরন্ত শিল্পসম্ভার নিয়ে হাজির ছিলেন শিল্পীরা।আইসিসিআর এর গ্যালারিতে। যাঁরা এলেন, দেখলেন, তাঁরা ফিরলেন একরাশ ভাললাগা ও প্রাণের ছোঁয়া নিয়ে। হ’য়ে তো আবার অন্য কোথাও দেখা হওয়ার প্রত্যাশায়…

Leave a Reply

%d bloggers like this: