গত মে মাস থেকে বন্ধ হয়ে পরে আছে পানিহাটি শ্মশান ঘাট

HnExpress ১৭ই অগাস্ট, জয় গুহ, উত্তর ২৪ পরগণা ঃ গত মে মাসের ২০ তারিখে হওয়া আমফান ঝড়ে পানিহাটি শ্মশানের গ্যাস বেড়ানোর যে বড় পাইপ, যা দিয়ে ধোঁয়া বের হয় সেই পাইপটি ভেঙে পড়ে যায়। ঠিক তারপর থেকেই দীর্ঘদিন পানিহাটি শ্মশান ঘাট বন্ধ হয়ে পড়ে রয়েছে। আগস্ট মাসের মাঝামাঝি হয়ে গেল এখনো পর্যন্ত পানিহাটি শ্মশান ঘাট চালু করতে পারলো না পানিহাটি পৌরসভা।

পানিহাটি শ্মশান সবচেয়ে পুরনো শ্মশান ঘাট, ১৯৭৫ সালের ১১ই জুলাই মাসে প্রতিষ্ঠিত করা হয়েছিল এই চুল্লিটি। তারপরে বামফ্রন্ট সরকার এর সময় দ্বিতীয় চুল্লিটি বসানোর কাজ শুরু হয়। বিগত দিনে এই বামফ্রন্ট সরকার এবং পৌরসভা চলে যায় তৃণমূল সরকার আসার পরে। ২২শে সেপ্টেম্বর ২০১৮ সালে দ্বিতীয় চুল্লিটি চালু হয়, কিন্তু পৌরসভার অপদার্থতার জন্য দীর্ঘদিন ধরে দুটো চুল্লি থাকা সত্ত্বেও কোনোটি কাজ করছিল না।

যার ফলে সাধারণ রোগী বা সাধারণ ভাবে মানুষের মৃত্যু হলে বা করোনা আক্রান্তে মৃতদেহ পোড়ানো যাচ্ছে না এই শ্মশানে। চাপ বাড়ছে কামারহাটি খড়দা টিটাগর শ্মশানের উপরে। আর এই শ্মশানের উপরে বিরাট একটা অঞ্চল নির্ভর করে থাকে। বারাসাত, মধ্যমগ্রাম, নিউ ব্যারাকপুর, বিশরপাড়া, বিলকান্দা সহ বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ এর উপরে নির্ভরশীল। টেন্ডারে ডাকা হয়েছিল ১১ লক্ষ টাকা সারাতে খরচা হবে শ্মশানের যে বড় গ্যাসের পাইপটি ফেটে গেছে।

কিন্তু পরবর্তীকালে তার খরচ বেড়ে যাওয়ায় আবার নতুন করে কেএমডিএতে এস্টিমেট পাঠানো হয়েছে টাকা বাড়ানোর জন্য। বেটিং এস্টিমেট হয়ে গেছে, টেন্ডারও ডাকা হয়েছে, কিন্তু এখনো টেন্ডারের একজন বাদে কেউ এটেন্ড করেনি। আবার সেই টেন্ডার এক্সটেনশন করে সাত দিন বাড়ানো হয়েছে। সরকারি নিয়মে তিনজন টেন্ডার এটেন্ড না করলে টেন্ডার দেওয়া যায় না। সেই কারণেই কাজ শুরু করা যাচ্ছে না।

এর মধ্যে দিয়ে বোঝা যায় যে এই কাজের মধ্যে কোথাও একটা কাটমানি খাওয়া বা ঘুষ এর টাকা-পয়সা লেনদেনের জন্যই এখনো পর্যন্ত পানিহাটির এই শ্মশানটা চালু করতে পারল না পানিহাটি পৌরসভা। পানিহাটিতে এত উন্নয়ন হচ্ছে যে, মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর অনুপ্রেরণায় পানিহাটি জুড়ে যেন উন্নয়নের জোয়ার চলছে।

আর সেই জোয়ারের উন্নয়নের অবস্থা এটাই যে দীর্ঘদিন ধরে শ্মশানটা বন্ধ হয়ে পড়ে আছে। সেটা এখনো অব্দি চালু করতে পারল না। এই ব্যর্থতার জন্য এখন সাধারণ মানুষকে সমস্যার মুখোমুখি হতে হচ্ছে। এদিকে ঘটা করে উদ্বোধন করা নতুন শ্মশানের সেই চুল্লি কতদিনে সাধারণ মানুষের জন্য যে আবারও চালু হয় তারই অপেক্ষায় থাকতে হবে এবং চোখ রাখতে হবে সেদিকেই।

Leave a Reply

%d bloggers like this: