হোটেলে ঢুকে প্রকাশ্যে খুন হোটেল মালিককে



HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, আসানসোল : শুক্রবার ভরসন্ধ্যা বেলায় এক হোটেল ব্যবসায়ীকে তাঁরই হোটেলে ঢুকে প্রকাশ্যে গুলি করে খুন করল দুষ্কৃতীরা। মর্মান্তিক খুনের এই ঘটনাটি ঘটেছে আসানসোলে। গুলিবিদ্ধ অবস্থায় ব্যবসায়ীকে দ্রুত হাসপাতালে ভর্তি করা হলেও চিকিৎসকেরা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে যে, শুক্রবার সন্ধ্যায় পর পর গুলির শব্দে কেঁপে ওঠে আসানসোল দক্ষিণ থানার ভগৎ সিংহ মোড় এলাকা। ওই এলাকারই একটি হোটেলে ঢুকে সেই হোটেলেরই মালিককে লক্ষ্য করে প্রায় পাঁচ রাউন্ড গুলি চালিয়ে পালিয়ে যায় দুষ্কৃতীরা। দূর্ভাগ্যবশত প্রায় সব’কটা গুলিই ওই ব্যবসায়ীর শরীরে লেগেছে বলে জানা গেছে। সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়েছে সেই হাড়হিম করা ঘটনার ফুটেজ।

পুলিশ সূত্রের খবর, নিহতের নাম অরবিন্দ ভগত। আসানসোল দক্ষিণ থানার অন্তর্গত ভগৎ সিংহ মোড়ের একটি হোটেলে এই ঘটনাটি ঘটেছে। আশঙ্কাজনক অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় ওই ব্যবসায়ীকে। কিন্তু চিকিৎসকেরা তাঁকে তৎক্ষনাৎ মৃত বলে ঘোষণা করেন। কেন এই খুনের ঘটনা? তার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

সেদিন ওই মীরা হোটেলের মালিক সোফাতে বসে কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলছিলেন। এমন সময় দুজন হোটেলে ঢোকে। কিছু বুঝে ওঠার আগে প্রায় পাঁচ রাউন্ড গুলি চালায় তারা। সোফার পাশেই লুটিয়ে পড়েন তিনি। এদিকে একেবারে জনবহুল জায়গায় রয়েছে হোটেলটি। কাছেই মন্ত্রী মলয় ঘটকের বাড়িও। সেখানেই মন্ত্রীর নাকের ডগায় গুলি চালিয়ে চম্পট দিল দুষ্কৃতীরা।



এদিকে ঘটনার সময় সেই হোটেলের নিরাপত্তাকর্মীরাও উপস্থিত ছিল। কিন্তু তাঁরা নাকি ঘটনার আকষ্মিকতায় হতবাক। তাদের মধ্যে একজন নিরাপত্তারক্ষী সংবাদ মাধ্যমে জানিয়েছেন, ওরা দুজন এসেছিল। এরপর ঠাঁই ঠাঁই করে শব্দ হল। মালিক গুলির আঘাতে মাটিতে লুটিয়ে পরেন, তারপরই ওরা চলে গেল। আসানসোল দক্ষিণ থানার আওতায় ভগৎ সিং মোড়ের কাছেই এই হোটেলটি

সেখানেই এদিন সন্ধ্যায় গিয়েছিলেন মালিক। কয়েকজনের সঙ্গে সোফায় বসে কথা বলছিলেন। আচমকাই হোটেলে ঢোকে দুষ্কৃতীরা। তারা ঝাড়খণ্ডের বলেই মনে করা হচ্ছে প্রাথমিক তদন্তে। পুরানো কোনও শত্রুতার জেরে এই ঘটনা কিনা তা খতিয়ে দেখচ্ছে পুলিশ।

তবে প্রশ্ন উঠছে এমন জনবহুল জায়গায় এবং খোদ মন্ত্রীর বাড়ির কাছে কীভাবে হোটেলে ঢুকে গুলি চালিয়ে পালিয়ে গেল দুষ্কৃতীরা? ঘটনাস্থল থেকে থানাও খুব বেশি দুরে নয়। এদিকে ঝাড়খণ্ড সীমান্তেও এই নিয়ে খানাতল্লাশি চলছে। হোটেল কর্মীদেরকেও জেরা শুরু করেছে পুলিশ।


Posted

in

,

by

Comments

Leave a Reply