কৃষ্ণনগরের বিধায়ক তথা প্রাক্তন আইপিএস অফিসার অবনী মোহন জোয়ারদার অন্তিম রথে চড়ে পরলোকে পাড়ি দিলেন

HnExpress ১২ই জুন, সুদীপ ঘোষ, নদীয়া ঃ কৃষ্ণনগর উত্তর কেন্দ্রের তৃণমূল বিধায়ক ও প্রাক্তন কারামন্ত্রী অবনী মোহন জোয়ারদার অন্তিম রথে চড়ে পরলোকে পাড়ি দিলেন। মৃত্যু কালে তার বয়স হয়েছিল ৭৯ বছর। তিনি মুলত বাধ্যক্যজনিত কারণে ও শারীরিক অসুস্থতায় ভুগছিলেন। এরপর তাঁর সল্টলেক এর বাড়িতেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন প্রাক্তন আইপিএস ও কারামন্ত্রী তথা বর্তমান তৃণমূল বিধায়ক অবনী মোহন জোয়ারদার।

বাংলার পরিবর্তনের শরিক, ২০১১ সাল থেকে পর পর দু দু’বার নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি, আর ২০১৬ সালে রাজ্যের কারা দপ্তরের মন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়েছিলেন অবনীবাবু। এরপর
কৃষ্ণনগর শহর সহ পার্শ্ববর্তী ৫টা অঞ্চলের মানুষের কল্যাণে উনি বহু উন্নয়নমূলক কাজ করেছিলেন। তিনি নিজে অসুস্থ থাকাকালীন এই ভয়াবহ করোনা পরিস্থিতিতে বিধানসভার অন্তর্গত প্রত্যন্ত গ্রামে গ্রামে গিয়ে কমিউনিটি কিচেনের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের মুখে খাবার তুলে দেন।

অবনীবাবুই সর্বপ্রথম বাংলায় এই কমিউনিটি কিচেন চালু করেছিলেন, এমনটা বলাই বাহুল্য।২০১১ সাল থেকে সাংসদ তথা বাংলা চলচ্চিত্র এর এক জনপ্রিয় অভিনেতা তাপস পালের সাথে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে উন্নয়ন কাকে বলে সেটা উনি বুঝিয়ে দিয়ে ছিলেন। তবে কিছুদিন আগেই প্রয়াত হয়ে ছিলেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ তাপস পাল। তখনও গভীরভাবে শোকাহত ছিল নদিয়া তথা তাঁর অভিনয়ে গুণমুগ্ধ রাজ্যবাসী।

তার কিছুদিন পরেই আবারও কৃষ্ণনগর বাসি হারালেন তাদের প্রিয় বিধায়ক অবনী মোহন জোয়ারদারকে। কৃষ্ণনগর শহর তৃণমূলের st, sc, obc সেলের প্রেসিডেন্ট ধ্রুবজ্যোতি বিশ্বাস আমাদের বলেন, “আমরা প্রথমে তাপস পাল এবং আজ অবনী বাবুকে হারিয়ে উন্নয়নের নিরিখে বোধহয় বেশ অনেকটাই পিছিয়ে পরলাম”।

Leave a Reply

%d bloggers like this: