কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লিতে আন্দোলনরত কৃষকের পাশে দাঁড়ালো জলপাইগুড়ির বামপন্থী যুব সংগঠন

HnExpress ২২শে ডিসেম্বর, অরুণকুমার, শিলিগুড়ি ঃ সারা দেশ জুড়ে কৃষকদের আন্দোলন চলছে, সম্প্রতি কেন্দ্রীয় সরকারের পাস হওয়া কৃষি আইন বাতিল ও সেই সঙ্গে নিম্নতম কৃষিপণ্য মূল্য সংক্রান্ত আইন প্রনয়নের বিরুদ্ধে। এই নিয়ে গত এক সপ্তাহ ধরে জাতীয় রাজধানী দিল্লিতে আন্দোলন করছে উত্তর ভারত সহ সারা দেশের কৃষকরা। আর ক্রমশ এই আন্দোলনকে সমর্থন করতে এগিয়ে এসেছে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে কৃষক যুব সংগঠনগুলি। কৃষি আইন বাতিলের দাবিতে দিল্লিতে আন্দোলনরত কৃষকের পাশে এবারে দাঁড়ালো জলপাইগুড়ির বামপন্থী যুব সংগঠন।

এই রাজ্য তথা উত্তরবঙ্গের বিভিন্ন জেলাগুলিতে আন্দোলনরত কৃষকদের জন্য সহানুভূতি এবং সমর্থন জোগাতে এবার পথে নেমেছি বামপন্থী সংগঠনগুলি। তারই এক চিত্র দেখা গেল গত রবিবার। দিল্লির ৩ ডিগ্রি থেকে ৪ ডিগ্রি ঠান্ডায় আন্দোলনরত কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে এদিন জলপাইগুড়ি শহরে অর্থ সংগ্রহ করল DYFI জলপাইগুড়ির কমরেডরা। বাজারের সমস্ত ছোট ব্যবসায়ী থেকে আড়তদার সকলের কাছে গিয়ে অন্নদাতা কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে অর্থ সাহায্যের আবেদন করেন DYFI সদস্যরা।

এই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন DYFI এর জলপাইগুড়ি জেলা কমিটির সম্পাদক প্রদীপ দে, শহর লোকাল কমিটির সম্পাদক সাম্য সরকার, যুব নেতা দেবব্রত ভৌমিক, বেদব্রত ঘোষ, পিংকু দাস, জেলা সম্পাদক মন্ডলীর সদস্য শুভেন্দু সাহা, দীপশুভ্র সান্যাল সহ অন্যান্য যুব আন্দোলনের নেতৃবৃন্দ। এদিন জেলার বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সবজি মাছ সংগ্রহ করে বাজারে বিক্রি করতে আসা সমস্ত ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাও দিল্লির কৃষকদের পাশে দাঁড়াতে সাধ্যমত অর্থ সাহায্য করেন এই কর্মসূচিতে।

তবে ব্যবসায়ীরা আশঙ্কা প্রকাশ করে বলেন যে, এখন কৃষকদের পাশে না দাঁড়ালে আগামীতে ওয়াল-মার্ট রিলায়েন্স গোষ্ঠীর শপিং মল থেকে বাজার করবেন মানুষ। দিনবাজার, স্টেশন বাজার এর মতন ছোট ছোট বাজার আগামীতে থাকবে না, কর্মহীন হবেন ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাও। এমতাবস্থায় দিল্লিতে কৃষকরা যেভাবে তীব্র শৈত্য প্রবাহের মধ্যে কৃষি ও কৃষকের স্বার্থে যে আন্দোলন করছে তাদের দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেওয়া দরকার। আমরাও সেই কাজে নিজেদের সামর্থ্য অনুযায়ী হাত প্রসারিত করেছি।

আমাদের স্বার্থের আন্দোলনে, আমরা অর্থ সাহায্য করবো না তো কে করবে? এ কথা জানালেন জলপাইগুড়ি দুই যুবনেতা প্রদীপ দে ও দীপশুভ্র সান্যাল। এদিনের এই অর্থ সাহায্য সংগ্রহ অভিযানে ব্যাপক হারে সাড়া পাওয়া গেছে জলপাইগুড়ি শহরের বিভিন্ন প্রান্ত জুড়ে, এমনটাই জানিয়েছেন তাঁরা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: