টোকিও অলিম্পিকে ভারতের আশা, কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছলেন তিরন্দাজীতে দীপিকা কুমারী ও ব্যাডমিন্টনে পি ভি সিন্ধু

HnExpress অরুন কুমার, অলিম্পিক ঃ টোকিও অলিম্পিকে মীরাবাঈ চানু’র পরেই অন্যান্য ক্ষেত্রে পদক প্রাপ্তির আশা ক্রমশ জোরদার হয়ে উঠছে তীরন্দাজি ও ব্যাডমিন্টনে। বিশ্বের এক নম্বর মহিলা তিরন্দাজ দীপিকা কুমারী অলিম্পিকে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেলেন। প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে জোরদার লড়াইয়ে রাশিয়ান অলিম্পিক কমিটির কসিনা পেরোভাকে হারালেন তিনি। ভারতের হয়ে পদক জয়ের উজ্জ্বল সম্ভাবনা তৈরি করছেন দীপিকা কুমারী।

টোকিও অলিম্পিকের সপ্তম দিনে প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে প্রথম তিন শট থেকে ৯, ১০ এবং ৯ পয়েন্ট সংগ্রহ করেন ভারতীয় তিরন্দাজ দীপিকা। মোট ২৮ পয়েন্ট নিয়ে প্রথম সেট জেতেন তিনি। দ্বিতীয় ও তৃতীয় সেটের পর ম্যাচ টাইব্রেকারে গড়ায়। ওয়ান শট টাইব্রেকারের মাধ্যমে ম্যাচের সিদ্ধান্ত হয়। রাশিয়ান অলিম্পিক কমিটির কসিনা পেরোভা স্কোর করেন ৭। আর দীপিকা ১০ পয়েন্ট স্কোর করে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে যান।

কোয়ার্টার ফাইনালে এবার জোর প্রতিদ্বন্দিতা হওয়ার সম্ভাবনা দীপিকার। অপরদিকে টোকিও অলিম্পিক এর সপ্তম দিনটি দারুণভাবে শুরু হল ভারতের জন্য। জয়ের ধারা বজায় রাখলেন ভারতীয় শাটলার পি ভি সিন্ধু। তিনি ডেনমার্কের মিয়া ব্লিচফেল্টকে হারিয়ে কোয়ার্টার ফাইনালে উঠলো। ওমেনস সিঙ্গেলসের রাউন্ড অফ সিক্সটিনে ডেনমার্কের জোরদার প্রতিপক্ষ মিয়া ব্লিচফেল্টকে হারালেন তিনি। মাত্র ৪০ মিনিটে খেলার ফল ২১-১৫, ২১-১৩। এই জয়ের ফলে কোয়ার্টার ফাইনালে পৌঁছে গেলেন অলিম্পিক্সে রুপো জয়ী এই টেনিস তারকা পি ভি সিন্ধু।

টোকিও অলিম্পিক্সে আসার আগে থেকেই সিন্ধুকে নিয়ে পদকের আশা রয়েছে। সেই ধারাবাহিকতাকেই প্রথম ম্যাচ থেকে দেখিয়ে এসেছেন এই ভারতীয় শাটলার। এদিন হংকংয়ের প্রতিদ্বন্দ্বীর বিরুদ্ধেও হট ফেভারিট ছিলেন সিন্ধু। এদিন প্রথম গেমে একেবারেই দাঁড়াতে পারেননি হংকংয়ের প্রতিদ্বন্দ্বী। ২১-৯ ব্যবধানে সেই গেম জিতে নেন রিও অলিম্পিক্সে রুপো জয়ী শাটলার। এর পরের গেমে অবশ্য কিছুটা লড়াই করার চেষ্টা করেছিলেন ই চেয়ুং। কিন্তু সিন্ধুর ক্ষিপ্রতার সামনে একেবারেই দাঁড়াতে পারেননি শেষ মুহূর্তে।

২১-১৬ ব্যবধানে জয় পান দ্বিতীয় গেমেও সিন্ধু।
এর আগে পি ভি সিন্ধু রবিবার মহিলাদের ব্যাডমিন্টন এর প্রথম রাউন্ডে প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দেন স্ট্রেট গেমে। ২১-৭ ও ২১-১০ গেমে ইসরায়েলের প্রতিপক্ষ সেনিয়া পোলিকার পোভাকে হারিয়ে ছিলেন সিন্ধু। প্রথম গেম জিততে সময় নিয়েছিলেন ১৩ মিনিট। দ্বিতীয় গেম জিতেছিলেন ১৬ মিনিটে। সব মিলিয়ে মাত্র ২৯ মিনিটে জিতে পরের রাউন্ডে উঠেছিলেন সিন্ধু। এইভাবে অতিমারি সময় দেরিতে আরম্ভ হলেও টোকিও অলিম্পিক্সে পত্র প্রাপ্তির সম্ভাবনা ক্রমশ দিয়ে রেখেছেন এই দুই তারকা। দেশবাসী এখন সেই আশাই রয়েছেন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: