বিভিন্ন স্তরে এক বছরে প্রায় দশ হাজারের বেশী বেতন বাড়লো প্রাথমিক শিক্ষকদের, সাথে পে প্রোটেকশনেও সুখবর আসছে, মিলতে পারে ডিএ—

HnExpress ১৭ই ডিসেম্বর, নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা : প্রকাশিত হলো শিক্ষা দপ্তরের জন্য রোপা। প্রাথমিক শিক্ষক মহলে খুশির হাওয়া। সিনিয়র জুনিয়রদের ভারসাম্য রক্ষা করে, এই প্রথম প্রধান শিক্ষকদের সুবিধা দিয়ে প্রকাশিত হলো, মা মাটি মানুষের সরকারের রোপা। এই বছর ডিএ, বার্ষিক ইনক্রিমেন্ট, পে ব্যান্ড পরিবর্তন ও রোপা মিলিয়ে বিভিন্ন স্তরে এক বছরে প্রায় দশ হাজার টাকার বেশী বেতন বাড়ছে সমস্ত শিক্ষকদের।

তৃনমুল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির রাজ্য সভাপতি অশোক রুদ্র মহাশয় বললেন, ‘তিনি যেটা বলেন সেটাই হয়, বেতনবৃদ্ধি নিয়ে তাঁর বক্তব্য মত সুযোগ সুবিধা মিলছে,’ এখনও তিনি আশ্বাস দিয়েছেন পে প্রোটেকশন সংক্রান্ত সুখবরের। তিনি সমস্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করার এবং রাম বাম জোটের বিভিন্ন প্ররোচনা থেকে দূরে থেকে রাজ্য সরকারের সাথে থাকার জন্য আহ্বান জানান।

এবার এই প্রথম প্রধান শিক্ষকদের দশ বছর কাজের পর একটি ইনক্রিমেন্ট পাওয়া যাবে। তিনি সকলকে অনুরোধ করেন ০১/০৮/২০১৯ এর অপশন নিতে। এই রোপাতে সিনিয়র জুনিয়রদের ফারাক দূর করা হয়েছে। আগে ২০০৪, ২০০৬ ও ২০১০ এর বেসিক এক হয়ে যাচ্ছিল। এই রোপাতে সেই সিনিয়র টিচারদের সিনিয়রটি বজায় রইলো, যেটা পশ্চিমবঙ্গ তৃনমুল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি বলে এসে ছিলো প্রথম থেকেই।

২০০৪ এ যোগদান কারী একজন প্রশিক্ষণ প্রাপ্ত শিক্ষক এর ০১/০১/১৬ তে বেসিক ১২৭৩০। এখন সে ০১/০১/১৬ তে অপশন দিলে তাহলে তার লেভেল ৬ এর কাছাকাছি “সেলে” বেসিক দাঁড়াবে ৩৩৩০০, যেটা ০১/০১/২০ তে গিয়ে হতো ৩৭৭০০. এখন সে যদি ০১/০৮/১৯ এ অপশন দেয়, তাহলে ০১/০১/২০ তে বেসিক হবে ৪০০০০+।

অন্যদিকে ২০১০ ও ২০১১ জয়েনিং নন ট্রেনড, ২০১৫ তে ট্রেনড বেসিক ছিলো ০১/০১/২০১৬ তে ৯৭৯০ ও ৯৫০০. তারা ১/১/১০১৬ তে অপশন দিলে বেসিক হতো ১/১/২০২০ তে ২৮৯০০. কিন্তু এখন ০১/০৮/২০১৯ তে অপশন দিলে ২০১০ এর বেসিক হবে ৩১৬০০ ও ২০২১ তে হবে ৩০৭০০. এইভাবে সকলেরই সিনিয়রটি বজায় থাকলো।

এই রোপাটি বাস্তবায়িত করার জন্য এবং প্রাথমিক শিক্ষকদের সবচেয়ে বেশী সুবিধা পাওয়ানোর জন্য, রাজ্য জুড়ে উঠে আসছে একটিই নাম তা হলো অশোক রুদ্রের বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও পশ্চিমবঙ্গ তৃনমুল প্রাথমিক শিক্ষক সমিতির বর্তমান রাজ্য ও জেলা নেতৃত্ব। যদিও অশোক রুদ্র সমস্ত কৃতিত্ব ও কৃতজ্ঞতা দিয়েছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী ও জননেত্রী মমতা ব্যানার্জী এবং শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চ্যাটার্জীকে, মূলত তাদের সমিতির এই অনুরোধ রাখার জন্য।

তিনি রাজ্যের সমস্ত শিক্ষক শিক্ষিকাদের আবেদন জানিয়েছেন NRC, CAB সহ সমস্ত ইস্যুতে রাজ্য সরকারের পাশে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষকে ভরসা দেওয়া এবং সরকারের বিভিন্ন প্রকল্পগুলোর সুফল সকল স্তরের মানুষের মাঝে পৌঁছে দেওয়ার জন্য।

Leave a Reply

%d bloggers like this: