দেওয়ান পাড়ায় ছোটোরা মহা সমারোহে পালন করল সরস্বতী পুজো—

HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, বেলঘরিয়া সরস্বতী পুজো মানেই সকালে শীল নোড়ায় বাটা কাঁচা হলুদ মাখার পর হাল্কা ঠান্ডাতে কাঁপতে কাঁপতে স্নান। তার পর বাড়ির পুজোয় অঞ্জলি। পূজা শেষে সেই বছরে প্রথম কুল খাওয়া। তারপর আর কি দিনভর পাড়ার পুজোয় কিম্বা স্কুলের পুজোয় আড্ডা দিয়ে খিচুড়ি খাওয়া। এ বছর করোনার চোখ রাঙানো কিছুটা কমার পর সম্প্রতি দেওয়ান পাড়ায় ছোটোদের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত হলো সরস্বতী পুজো। যার শুভ উদ্বোধন করলেন সেই পুজো কমিটির চেয়ারম্যান অরিন্দম গাঙ্গুলি।

ফেব্রুয়ারীর ১৬ তারিখের এই দিনটা খুব ঠান্ডা না হলেও বেশ নাতিশীতোষ্ণ ছিল, তা বলাই যায়। ফলে বাগদেবীর আরাধনায় ছেলে, বুড়ো, মেয়ে, কচিকাঁচা সবাইকেই বেশ খোসমেজাজে দেখা যায়। শিল্পী অজিত পাল এর হাতে ধরে “নতুনত্বের ছোয়ায়” ভাবনার অভিনব রূপ সৃষ্টি করে ছিলো সরস্বতী প্রতিমার। দেখা শোনার দায়িত্ব নিয়েছিলেন রঞ্জন রায়। এদিন পুজোর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন আবীর চ্যাটার্জি, গৌরব পালিত ও আরও অন্যান্য ব্যাক্তিগন।

হিন্দু মতে দেবী সরস্বতী হলেন বিদ্যা, জ্ঞান, শিল্পকলা, সঙ্গীত ও সাহিত্যের অধিষ্ঠাত্রী দেবী। সরস্বতী পুজোর দিন ছোট শিশুদের হাতেখড়ি দেওয়ার অনুষ্ঠান প্রচলিত আছে। এদিন থেকেই অনেক শিশু তাদের প্রথম অক্ষর লেখা শেখে। “ওম জয় জয় দেবী চরাচর সারে, কুচ যুগ শোভিত মুক্তাহারে, বীণা রঞ্জিত পুস্তক হস্তে, ভগবতী ভারতী দেবী নমোস্তুতে” মন্ত্রে শিশুদের সাথে বড়োরাও অঞ্জলী দেয় প্রতিমার চরণ কমলে। চেয়ারম্যান অরিন্দম গাঙ্গুলি ও সলিল চ্যাটার্জিকে বিশেষ উপহার দেওয়া হয় এদিন।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: