কলকাতা পুলিশের আবারও এক মানবিক মুখ, “পাশে আছি সাধ্য মতো”—




HnExpress ওয়েবডেক্স নিউজ ঃ কলকাতা পুলিশের আবারও এক মানবিক মুখ, “পাশে আছি সাধ্য মতো”। খড়গপুরের বাসিন্দা রাধারাণী ধাওয়া নামে এক মহিলা আনোয়ার শাহ রোডে একটি সরকারি বাস থেকে নামেন। তিনি কলকাতায় এসেছিলেন ব্যক্তিগত কাজে, কিন্তু নামার সময় বাসেই তাঁর ব্যাগটি ফেলে আসেন তিনি। ব্যাগে ছিল প্রায় ৬০ হাজার টাকা। নিজের ভুল বুঝতে পেরে তড়িঘড়ি একটি ট্যাক্সি ধরে বাসের পিছু নিলেও শেষ পর্যন্ত বাসের নাগাল পাননি বলে জানা গেছে। সেই সময় তাঁর ট্যাক্সিটি টালিগঞ্জ এলাকার জুবিলী পার্ক লেন এবং দেশপ্রাণ শাসমল রোডের কাছে দাঁড়িয়ে ছিল।

পুলিশ সুত্রের খবর, গতকাল বিকেল চারটে নাগাদ ওসি রিজেন্ট পার্ক ট্রাফিক গার্ড ইন্সপেক্টর আশীষ কুমার রায়ের কাছে এমনই একটি তথ্য আসে। তিনি তৎক্ষনাৎ রিজেন্ট পার্ক ট্রাফিক গার্ডের সার্জেন্ট শিবরাম চক্রবর্তীর সঙ্গে যোগাযোগ করেন। দ্রুত ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয়ে সার্জেন্ট শিবরাম চক্রবর্তী দেখেন, ট্যাক্সিতে বসে অঝোরে কেঁদে চলেছেন রাধারাণী। তিনি জানান, এতগুলো টাকা হারিয়ে যাওয়ায় দুশিচন্তায় কিছুটা অসুস্থ বোধ করছেন। এদিকে, বাসের রুট নম্বর জানলেও বাসের টিকিট নেই তাঁর কাছে।

এরপরই তোরজোর শুরু হয় টাকা সমেত ব্যাগটি উদ্ধার করার চেষ্টায়। মিনিট দশেক আগেই বাসটি সেখান দিয়ে গিয়েছে জেনে পরবর্তী একটি সিগনালে ডিউটিতে থাকা গড়িয়া ট্রাফিক গার্ডের অফিসারের সঙ্গে যোগাযোগ করেন শিবরাম। সেই অফিসার জানান, কয়েক মুহূর্তে আগেই বাসটিকে সিগনাল পার করতে দেখেছেন তিনিও। বাসটি গড়িয়া ডিপোর দিকে যাচ্ছে আন্দাজ করে ডিপোর কাছে ডিউটিরত আরেক অফিসারের সঙ্গে এর পর যোগাযোগ করেন শিবরাম।

তিনি জানান, বাসটিকে যেকোনো মূল্যে থামাতে হবে। আর সেই মতো থামানো হয় বাসটিকে এবং অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় রাধারাণীর টাকা ভর্তি ব্যাগটিও। গড়িয়া ডিপোয় পৌঁছে যান রাধারাণী এবং শিবরাম, সনাক্তকরণের পরে ব্যাগটি ফেরত যায় নিজের মালিকের কাছে। জানা গেছে, শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত এই অভূতপূর্ব ব্যাগ উদ্ধার অভিযানে সময় লেগেছে মাত্র আধঘণ্টা।

তথ্যসূত্র ও চিত্র ঃ কলকাতা পুলিশ ফাইল।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: