খেলার ময়দান এর পর কি রাজনৈতিক ময়দান সৌরভের লক্ষ্য? আঁতস কাঁচে চোখ এইচ এন এক্সপ্রেস এর—

HnExpress প্রিয়দর্শী সাধুখাঁ, কলকাতা ঃ খেলার ময়দানের পর কি রাজনৈতিক ময়দান সৌরভের লক্ষ্য? আতস কাঁচে চোখ এইচ এন এক্সপ্রেস এর— ২০২০ পেরিয়ে ২১ শে পরলো বছর। আর কিছু না হোক ভোট আসছে এগিয়ে। একদল আসতে মরিয়া বাংলার রাজনীতিতে, আর একদল বাংলায় থাকতে মরিয়া। নেতা মন্ত্রিরা ভুরি ভুরি আশ্বাস আর প্রকল্পের সুবিধা দিয়ে আম জনতাকে কাছে টানতে বদ্ধপরিকর।

এমন অবস্থাতে বাংলার গদি জিততে মরিয়া ভারতীয় জনতা পার্টি। ক্ষমতাতে আসবার আগেই বাংলার ভাবী মুখ্যমন্ত্রী হবে কে? তার জল্পনা শুরু বিজেপির অন্দরে। অধিকাংশ বাঙালির মত বাংলার বাঙালিদের মন পেতেই কি এই সিধান্ত? কারন বিজেপি নেতৃত্বদের মধ্যে অনেকেই আছেন যারা মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য উপযুক্ত। তাহলে বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে নিয়ে কেন এতো টানাটানি! উত্তর খুঁজতে গিয়ে বেশ কিছু সূত্র পেয়েছেন রাজনৈতিক বিশ্লেষক, বিশেষজ্ঞ, সংবাদমাধ্যম।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, দূর্গাপুজোর ষষ্ঠীর সকালে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর অনুষ্ঠানে পারফর্ম করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের স্ত্রী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়। অন্যদিকে, দিল্লির ফিরোজ শাহ কোটলায় অরুণ জেটলির মূর্তি উন্মোচনে একই মঞ্চে সৌরভ এবং শাহকে উপস্থিত থাকতেও দেখা গেছে। অপরদিকে, সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর সাথে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়ের সাথে ‘সৌজন্য’ সাক্ষাৎকারও ঘটে।

রাজ্যপালের সাথে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের সৌজন্য’ সাক্ষাৎকারকে নিয়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ মন্তব্য বেশ ইঙ্গিতপূর্ণ। দিলীপ ঘোষ বললেন “ভালো’ লোকেদের বিজেপিতে আহ্বান জানাচ্ছে গেরুয়া শিবির। আমার কিছু জানা নেই। তিনি কী করবেন, কী না করবেন। তিনি আমাদের কাছে সম্মানীয় ব্যক্তি। আমাদের ভারতের ক্যাপ্টেন ছিলেন। রাজ্যপালের সঙ্গে সৌরভের বৈঠক নিয়ে এত জল্পনার কী আছে? তবে বঙ্গের রাজনৈতিক অবস্থা শোচনীয়।

তাই ‘ভালো’ লোকেদের বিজেপিতে আহ্বান জানানো হচ্ছে। তাঁর মতো সফল ব্যক্তিদের রাজনীতিতে আসা উচিত বলে আমি মনে করি”, এমনটাই দাবি দিলীপ ঘোষের। আগামী বছর বিধানসভা নির্বাচনের আগেও রাজনৈতিক ময়দানে একাধিকবার সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নাম উঠে এসেছে। ইতিমধ্যেই দাদার অর্থাৎ সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় এর ৪৮তম জন্মদিনে সৌরভের স্ত্রী ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়কে প্রশ্ন করা হয়ে ছিলো যে, রাজ্য বিজেপির ‘মুখ’ হয়ে উঠবেন কিনা সৌরভ?

সেই প্রশ্নের উত্তরে ডোনা বলেছিলেন “সৌরভ যে পিচেই খেলেন, সেখানেই শীর্ষে থাকেন। রাজনীতিতে যোগ দিলে সেখানেও সৌরভ ‘শীর্ষেই’ থাকবেন বলে আশাপ্রকাশ করেছিলেন ডোনা গঙ্গোপাধ্যায়। রাজনৈতিক বিরোধী মহল ও কিছু আমজনতা মনে করছেন যে, ২০২১ এর ভোটে বাংলার গদি জয়লাভের জন্যই ছলে, বলে, কলে-কৌশলে এই পন্থা অবলম্বন করছে বিজেপি। ইতিমধ্যেই কৃষক আন্দলনের সমর্থনে বিজেপির বিরুদ্ধে রাগ প্রকাশ করছেন বেশীর ভাগ মানুষ। বাংলার মানুষের কাছে সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ‘দাদা’ হিসাবেই পরিচিত।

বিজেপিতে তিনি যোগদান করবেন, কি করবেন না তা একপ্রকার জল্পনা মাত্র এই মুহূর্তে। তবে যদি তিনি যোগদান করেই থাকেন তবে তা কতোটা সম্মানজনক, তার রায় দেবে ২০২১ এর ভোট। ইতিমধ্যেই যাকে নিয়ে এতো জল্পনা, সেই ভারতীয় ক্রিকেট দলের প্রাক্তন অধিনায়ক তথা বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় হঠাৎ অসুস্থ হয়ে মাথা ঘুরে পড়ে যান। বুকের বাঁদিকে ব্যাথাও অনুভব করেন। সূত্রের খবর অনুযায়ী জানা গেছে, তাঁকে এই মুহুর্তে একটি বেসরকারী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: