বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগে গ্রেপ্তার যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের এক প্রফেসর

HnExpress ৯ই অগাস্ট, নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা ঃ সম্প্রতি বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগে গ্রেপ্তার হলেন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর। আবারও এক অধ্যাপকের বিরুদ্ধে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সহবাসের অভিযোগ ওঠায় হতবাক শিক্ষার্থী থেকে অধ্যাপক মহল। জানা গিয়েছে, ছাত্রীর সঙ্গে দিনের পর দিন সহবাসের পর একদিন হটাৎই সমস্ত যোগাযোগ বন্ধ করে দেন তিনি। তারপরেই ছাত্রীটির করা ধর্ষণের অভিযোগে অভিযুক্ত হিসেবে গ্রেফতার করা হয় যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের সেই গর্ভরত্ন অধ্যাপককে।

বৃহস্পতিবার বিষয়টি জানিয়ে যাদবপুর থানায় ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের করেছেন নির্যাতিতা। ইতিমধ্যে অভিযুক্ত অধ্যাপককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৮ সাল থেকে পড়াশোনার কারণে কলকাতায় রয়েছেন ছাত্রীটি। তবে নির্যাতিতা তরুণী আদতে বীরভূম জেলার বাসিন্দা। তাঁর বক্তব্য অনুযায়ী, ২০১৮ সালে যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ওই অধ্যাপকের সঙ্গে তাঁর পরিচয় হয়, দুজনের মধ্যে বন্ধুত্ব তৈরি হয়। আর এরপরই ধীরে ধীরে সেই বন্ধুত্ব গড়ে ওঠে প্রগাঢ় ঘনিষ্ঠতায়।

পরবর্তীতে বিয়ের প্রতিশ্রুতি দিয়ে একাধিকবার তাঁর সঙ্গে সহবাস করেন অভিযুক্ত। হটাৎ চলতি বছরের শুরু থেকে প্রায় আচমকা ওই ব্যক্তির আচরণের পরিবর্তন ঘটতে থাকে। এরপর মার্চ থেকে তরুণীর সঙ্গে সম্পূর্ণ যোগাযোগ বন্ধ করে দেন ওই অধ্যাপক, এমনটাই অভিযোগ। তখন ওই পড়ুয়া একাধিক ভাবে তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ এর চেষ্টা করলেও কোনরকম যোগাযোগই রাখতে রাজি হননি অধ্যাপক।

জানা গিয়েছে, সেই কারণেই পরিশেষে বাধ্য হয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হন নির্যাতিতা। গত বৃহস্পতিবার গভীর রাতে অভিযোগ দায়েরের পরই গ্রেপ্তার করা হয়েছে ওই অধ্যাপককে। অভিযুক্তকে জেরা করা হচ্ছে বলে জানিয়েছে পুলিশ প্রশাসন। ছাত্রীর সঙ্গে সহবাসের পর যোগাযোগ বন্ধের ফলে ধর্ষণের মত এমন নিকৃষ্ট মানের অভিযোগের ফলে উক্ত অধ্যাপকের গ্রেপ্তারের ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে শিক্ষা মহলে, লজ্জায় মাথা নত বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র ছাত্রী ও অধ্যাপক মহলের। নড়েচড়ে বসেছেন নেটিজেনেরা।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: