স্ট্রোক কেন মুলত বাথরুমে হয়ে থাকে?

HnExpress স্বাস্থ্য সচেতনতা, রূপা বিশ্বাস ঃ কেন বাথরুমেই বেশিরভাগ ক্ষেত্রে স্ট্রোক হয়ে থাকে? জানুন কিভাবে পাওয়া যাবে এর হাত থেকে প্রতিকার।

একাংশ বিশিষ্ট চিকিৎসক বা বিশেষজ্ঞদের মতে, স্নান করার সময় সবাই সাধারণত আগে মাথা এবং চুল ভেজায়, যা একদমই উচিত নয়। এটি একটি ভুল পদ্ধতির স্নান। তারা আরো বলছেন, এই ভাবে প্রথমেই মাথায় জল দিলে রক্ত দ্রুত মাথায় উঠে যায়। এবং তার ফলে কৈশিক ও ধমণী একসাথে চিড়ে যেতে পারে। আর এর ফলস্বরূপ ঘটে স্ট্রোক, অতঃপর মাটিতে পড়ে যাওয়া।

সম্প্রতি কানাডার মেডিকেল অ্যাসোসিয়েশন জার্নালে প্রকাশিত একটি প্রতিবেদনে বলা হয়েছে যে, স্ট্রোক বা মিনি স্ট্রোকের কারন হিসেবে যে ধরনের ঝুকির কথা আগে থেকে ধারণা করা হতো, প্রকৃত পক্ষে এই ঝুকি দীর্ঘস্থায়ী এবং আরো ভয়াবহ। বিশ্বের একাধিক গবেষণা রিপোর্ট অনুযায়ী স্নানের সময় স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু বা পক্ষাঘাতে আক্রান্ত হওয়ার ঘটনা দিনের পর দিন বেড়েই চলেছে।

তাই এর থেকে মুক্তি পেতে হলে আজ থেকে কিছু নিয়ম মেনে স্নান করুন। সঠিক নিয়ম মেনে স্নান না করলে হতে পারে মৃত্যুও। স্নান করার সময় প্রথমে মাথা ও চুল একদমই ভেজাবেন না। কারন মানুষের শরীরে রক্ত সঞ্চালন একটা নির্দিষ্ট তাপমাত্রায় হয়ে থাকে।
শরীরের তাপমাত্রা বাইরের তাপমাত্রার সঙ্গে তাই মানিয়ে নিতে কিছুটা সময় লাগে। তাই যে কোন উত্তাপ ব্যালেন্সে আসতে বডিতে সময়ের প্রয়োজন হয়।

চিকিৎসকদের একাংশের মতে, মাথায় প্রথমেই জল দিলে সঙ্গে সঙ্গে রক্ত সঞ্চালনের গতি বহুগুণ বেড়ে যায়। ফলে সেই সময় বেড়ে যেতে পারে স্ট্রোকের ঝুকিও। তাছাড়া চিকিৎসকরা আরো বলছেন যে, মাত্রাতিরিক্ত রক্ত চাপের ফলে মস্তিষ্কের ধমনী ছিড়েও যেতে পারে। তাই এই দুর্ঘটনার হাত থেকে বাঁচতে হলে কিছু নির্দিষ্ট নিয়ম মেনে চলতে হবে। তাই আসুন, আজই জেনে নিই স্নানের কিছু সঠিক নিয়ম প্রণালী :–

➤ স্নানের সময় প্রথমেই পায়ের পাতা ভেজাতে হবে। এরপর আস্তে আস্তে জলের ধারাকে উপরের দিকে এনে কাঁধ পর্যন্ত ভেজাতে হবে।
সবার শেষে মাথায় জল দিতে হবে।

➤ যারা উচ্চ রক্তচাপ, উচ্চ কোলেস্ট্রোল এবং মাইগ্রেনে ভুগছেন তারা অবশ্যই এটা পালন করবেন।

এই তথ্যগুলো বয়স্ক মা-বাবা এবং আত্মীয় পরিজনদের জানিয়ে রাখতে পারেন, যাতে তারাও সতর্কতা অবলম্বন করতে পারেন। নিয়ম মেনে চলুন, আর এই গরমে সবাই সুস্থ থাকুন।

Leave a Reply

%d bloggers like this: