শুরু হয়ে গেলো বহু প্রতিক্ষিত ২১ এর ভোটযুদ্ধ, চিরাচরিত রাজনৈতিক রীতি অনুযায়ী সালবনিতে হিংসার অভিযোগ

HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা ঃ শুরু হয়ে গেলো বাংলার ভোট। আট দফার প্রথম পর্বে পশ্চিমবঙ্গে মোট ৩০টি আসনে চলছে ভোটগ্রহণ। জঙ্গলমহল অধ্যুষিত ৪টি জেলা ও পূর্ব মেদিনীপুরের ৩০টি আসনে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কোভিড আবহে নির্বিঘ্নে ভোট পর্ব জারি রাখতেই যথেষ্ট তৎপর নির্বাচন কমিশনও। নির্বাচন স্বচ্ছ ও শান্তিপূর্ণ করতে কমিশনের নজরদারি চলছে ক্রমশ। সকাল থেকে শান্তিপূর্ণ ভোট হলেও, বেলা বাড়তেই চেনা ছন্দে বাংলার সেই ভোট গ্রহন চিত্র।

প্রতিবারের মতোই ২০২১ -এও নির্বাচনে রাজ্যে হিংসার অভিযোগ উঠলোই। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার দক্ষিণ কাঁথিতে ইভিএম মেশিন নিয়ে বড়সড় অভিযোগ উঠল বিজেপির বিরুদ্ধে। ভোট দিয়ে বেড়িয়ে আসার পর অনেক ভোটার অভিযোগ করেছেন যে, তৃণমূলে ভোট দিলেও তা বিজেপির চিহ্নিত অংশে চলে যাচ্ছে। তৃনমুলে বোতাম টিপলেও স্ক্রিনে দেখা যাচ্ছে বিজেপির পদ্মফুল ফুটে উঠছে।

তবে ইতিমধ্যেই এই অভিযোগ খতিয়ে দেখছে কমিশন। নির্বাচন কমিশনের গননা অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত রাজ্যে ভোটদানের হার ৪০.৭৩%। অন্যদিকে শান্তির পরিবেশ নিয়ে ভোট এগোলেও, সকাল থেকেই উত্তেজনা ছড়ায় শালবনি অঞ্চলে। সকালে শুকনাতোড়ের বুথে এজেন্ট বসানোকে কেন্দ্র করে সিপিএম প্রার্থী সুশান্ত ঘোষের সঙ্গে তৃণমূল কর্মীদের বচসা বাধে। সেই সাথে বেলা বাড়তে বাড়তে উত্তেজনা আরও কয়েকগুণ বেড়ে যায়।

বিভিন্ন বুথে পর্যবেক্ষণে যাওয়ার পথে শালবনির পূর্ব-পাড়ার সিপিএম প্রার্থী সুশান্ত ঘোষের গাড়ি লক্ষ্য করে হামলা শুরু হয়। তাঁকে লক্ষ্য করে ইট মারার অভিযোগও উঠেছে। আর যার দরুন কাঠগড়ায় তোলা হয়েছে তৃণমূল কর্মীদের। ভোট শুরুর কয়েক ঘন্টা আগে পূর্ব মেদিনীপুরের পটাশপুরের সাতশতমালে তৃণমূল-বিজেপির মধ্যে সারা রাত বোমাবাজি চলে বলেও অভিযোগ ওঠে। বোমার ঘায়ে আহত হন পটাশপুর থানার ওসি দীপককুমার চক্রবর্তী-সহ আরও দু’জন পুলিশ কর্মী।

সকল ভোটারকে নিজের গণতান্ত্রিক অধিকার প্রয়োগের আবেদন করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দুপুর ১টা পর্যন্ত পশ্চিমবঙ্গের ৫ জেলায় ভোটদানের হার ৫৪.৯ শতাংশ।। অসমে ১টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ৩৭.০৬ শতাংশ। সকাল ১১টা পর্যন্ত ৫ জেলায় গড় ভোট পড়েছে ৩৬.০৯ শতাংশ।বাঁকুড়ায় ভোট পড়েছে ৩৬ শতাংশ। পুরুলিয়ায় ভোট পড়েছে ৩৩.৫৮ শতাংশ। পূর্ব মেদিনীপুরে ৩৮.৮৯ শতাংশ। ঝাড়গ্রামে ৩৭.০৭ শতাংশ। পশ্চিম মেদিনীপুরে ৩৫.৫০ শতাংশ।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: