মৃত্যু হলো করোনার উপসর্গ নিয়ে বাঙুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বৃদ্ধের

HnExpress ২রা এপ্রিল, জয় গুহ, কলকাতা ঃ মৃত্যু হলো করোনার উপসর্গ নিয়ে বাঙুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বৃদ্ধের। সম্প্রতি করোনার উপসর্গ নিয়ে এমআর বাঙুরে ভর্তি করা হয়েছিল এক বৃদ্ধকে। কিন্তু গতকাল বুধবার সকালেই শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করলেন সেই বৃদ্ধ। হাওড়ার ওই বৃদ্ধের বয়স ষাটের বেশি ছিল বলে জানা গিয়েছে। যদিও তাঁর করোনা ছিল কিনা, তা এখনও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

হাসপাতাল সূত্রে খবর, মঙ্গলবার এসএসকেএম থেকে বাঙুরে রেফার করা হয়েছিল ওই বৃদ্ধকে। তাঁর শ্বাসকষ্টের সঙ্গে জ্বরও ছিল, যা করোনা ভাইরাসেরি লক্ষণ। কিন্তু মঙ্গলবার তিনি বাঙুরে ভর্তি হলেও মৃত্যুর আগে পর্যন্ত তাঁর লালারসের নমুনাই নাকি সংগ্রহ করে উঠতে পারেনি সেই হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ফলে তিনি সত্যিই করোনায় আক্রান্ত কিনা তা জানা যায়নি।

তবে এই মুহূর্তে তাঁর সৎকার কীভাবে হবে, সেই নিয়েও জটিলতা দেখা দিয়েছে। সরকারি নির্দেশিকা অনুযায়ী করোনায় মৃতদের বিশেষ ভাবে সৎকার করা প্রয়োজন। কিন্তু ওই ব্যাক্তির তো করোনার পরীক্ষাই করা হয়নি। তবুও যেহেতু বৃদ্ধের করোনার কিছু উপসর্গ ছিল, তাই কোনও রকম ঝুঁকি না নিয়ে নিয়ম মতোই সৎকার করা হবে বলেই জানা গিয়েছে। আর
অন্যদিকে, রথতলার জেনিথ হাসপাতালে মৃত্যু হয় বেলঘড়িয়ার করোনা আক্রান্ত ব্যক্তির।

গতকাল উত্তর চব্বিশ পরগনার বেলঘড়িয়ায় সাধন সাধুকা নামের এই প্রৌঢ়ের শরীরে ভাইরাসের হদিস মেলে। গত ২৩ মার্চ থেকে অসুস্থ ছিলেন তিনি। জ্বর ও শ্বাসকষ্ট জনিত সমস্যা নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন সাধনবাবু। লালা রস পরীক্ষা করা হলে তার রিপোর্ট আসে পজেটিভ। তবে এই ব্যক্তির বিদেশ ভ্রমণের কোন ইতিহাস যেমন নেই, তেমনি অন্য রাজ্যে যাওয়ার ইতিহাসও নেই। এই মৃত্যুতে রাজ্যের ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়ায় ৬। যদিও রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য দপ্তর সুত্রে জানানো হয়েছে মৃতের সংখ্যা।

Leave a Reply

%d bloggers like this: