Fri. Feb 21st, 2020

বারংবার বাধাপ্রাপ্ত হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ মেডিকেল কাউন্সিল নির্বাচন ২০১৮, প্রশ্নের তীর রাজ্য সরকারের দিকে

HnExpress ইন্দ্রাণী সেনগুপ্ত, কলকাতা : আজ কলকাতা প্রেসক্লাবে একটি সাংবাদিক বৈঠকে আসন্ন মেডিকেল কাউন্সিল নির্বাচন ২০১৮ -এর বিষয় এক চাঞ্চল্যকর তথ্য উঠে আসে। আর মাত্র একমাস মতই বাকি মেডিকেল কাউন্সিল এর নির্বাচন শুরু হতে, ঠিক তার কিছুদিন আগেই কলকাতার মেডিকেল কলেজ সহ রাজ্যের বিভিন্ন জেলার মেডিকেল কলেজে পৌছাতে শুরু করেছে খামে মোড়া ব্যালট পেপার। যেখানে নিজের নিজের পছন্দসই প্রার্থীর নাম উল্লেখ করে জমা দিতে হবে মেডিকেল কাউন্সিল নির্বাচন ২০১৮ এর সুযোগ্য প্রার্থী মনোনয়ন এর জন্য। কিন্তু সেখানেই হয়ে আছে আসল গ্যাঁড়াকল, আশ্চর্যের বিষয় হল এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ অরাজনৈতিক নির্বাচনেও শুরু হয়ে গেছে মারাত্মক বাধা সৃষ্টি। মেডিকেল কলেজগুলিতে জমা হওয়া খামে নাকি কোনো ব্যালট পেপারই নেই! হ্যাঁ, কলকাতা প্রেসক্লাবে প্রেস বিবৃতে তথ্যসহ এমনই সব অভিযোগ পেশ করলেন পশ্চিমবঙ্গ এর প্রায় সব মেডিকেল কলেজের আসন্ন নির্বাচন প্রার্থীরা। এদিন এই সাংবাদিক বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন কলকাতা সহ বিভিন্ন জেলা থেকে আগত মেডিকেল কাউন্সিল নির্বাচনের মনোনীত প্রার্থী ডাঃ রেজায়ুল কারিম, ডাঃ আর.ডি দুবে, ডাঃ ইন্দ্রজিৎ রায়, ডাঃ পূর্ণব্রত গুন, অধ্যাপক বারিন রায়চৌধুরী, ডাঃ হিরালাল কোণার, ডাঃ হিরন্ময় ঘোষাল, অধ্যাপক ডাঃ অমিতাভ চক্রবর্তী, অধ্যাপক ডাঃ বিশান বসু, অধ্যাপক ডাঃ অনুপ রায়, অধ্যাপক ডাঃ অর্ণব সেনগুপ্ত, ডাঃ গৌতম দাস প্রমুখ। 

তাঁরা আজ যৌথভাবে প্রেসবিবৃতিতে জানান যে, আসন্ন নির্বাচনের আগে কলকাতা সহ বিভিন্ন জেলার মেডিকেল কলেজে খাম সহযোগে ব্যালট পেপার এসে পৌছায়। এবারও তার কোনো ব্যাতিক্রম হয়েনি, কিন্তু দুশ্চিন্তার বিষয় হল এবারে কিছু খাম এসে জমা হয়েছে ব্যালট শূন্য অবস্থায়। আবার বেশকয়েকটি কলেজে এখনো অব্দি ব্যালট সহ খামই এসে পৌঁছায়নি। কোথাও আবার নাম পদবি ভুল অথবা ঠিকানা ভুল এসেছে। যার দরুন আমরা খুব অনিশ্চিত ও আপাতকালিন সংকটের মধ্যে রয়েছি।  সামনে নির্বাচন, অথচ আমরা অনেকেই এখনো ব্যালট এর খাম পাইনি, নতুবা পেয়েছি ব্যালট শূন্য খাম বা ভুলভাল তথ্য। তাঁরা আরও বললেন যে, সম্প্রতি কলকাতার এক ডিন এর সামনেই খোলা হয়ে পর পর বেশকয়েকটি খাম, যার ভিতর ব্যালটের কোন অস্তিত্বই নেই। তার পরেও এই অরাজনৈতিক নির্বাচনকে পন্ড করার অভিপ্রায় কিছু অসাধু মানুষকে কাউন্সিল বোর্ডের দন্ডমুন্ডের কর্তা বানানোর অসৎ উদ্দেশ্যে আমাদের বহু ডাক্তারদের ফোনে ম্যাসেজ আসছে যে, নিজের নাম লিখে চুপচাপ ব্যালট শূন্য খামই নির্বাচনের জন্য জমা করে দিতে। অর্থাৎ তাঁরা তাদের পূর্ব নির্বাচিত অসাধু ব্যাক্তিগুলিকেই পুনরায় পদে ফিরিয়ে আনতে এই ভণ্ডামির আশ্রয় নিয়েছে বলেই আমরা মনে করি। আমাদের একপ্রকার ঠান্ডা মাথায় হুমকি দেওয়া হচ্ছে, যাতে আমরা নিরবে নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়াই। তাঁরা আরও জানালেন, যে এমতাবস্থায় আমরা সুবিচারের আশায় এই সাংবাদিক বৈঠকের আয়োজন করেছি, যাতে আমাদের প্রতিবাদের আওয়াজ বর্তমান সরকারের কানে পৌঁছায়। কারন আমাদের দৃঢ় বিশ্বাস এই অরাজনৈতিক পটভূমিতে এখন রাজনৈতিক কিছু মানুষ অসাধু উদ্দেশ্যে ক্ষমতা হস্তান্তরিত করতে চাইছে নির্বাচন বন্ধ করে। তাই আমরা আগামীকাল অর্থাৎ ২৬শে জুলাই এই মর্মে লিখিত আবেদন সহ উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হব। যাতে সুষ্ঠভাবে ও সততার সাথে শান্তি শৃঙ্খলা বজায় রেখে নিজ নিজ মনোনীত প্রার্থী নির্বাচন করে ব্যালট পেপার জমা দিয়ে নির্বিঘ্নে মেডিকেল কাউন্সিল নির্বাচন ২০১৮ সুসম্পন্ন হতে পারে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: