পুজোয় বীজপুরের কেন্দ্র বিন্দু বাগমোড়

HnExpress দেবাশিস রায়, কাঁচরাপাড়া : পিতৃপক্ষের অবসান ঘটিয়ে শুরু হয়ে গেছে দেবীপক্ষ। সপ্তাহ ঘুরতেই দেবী দুর্গার বোধন। আর তার আগেই সেজে উঠতে শুরু করেছে সারা বীজপুর। ইতিমধ্যে বড় বড় বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠানের তোরণে মুখ ঢেকেছে আকাশ। প্রসঙ্গত, বীজপুর পুলিশ প্রশাসন এবার বিশেষভাবে তোরণ নির্মাণে নজরদারি করছে উচ্চতার দিকে।

মহাজাতির আয়োজন।

প্রতিবছর কাঁচরাপাড়ার পুজোগুলি মানুষের কাছে বিশেষভাবে সমাদৃত হয়ে আসছে। তবে এবার পুজোয় হালিশহরের নজরকাড়া বেশ কয়েকটি পুজো উদ্যোক্তাদের আয়োজন সবার মন কেড়ে নেবে সন্দেহ নেই।

কাঁচরাপাড়ার পুজোগুলোর মধ্যে স্টেশন সংলগ্ন ১৬-র পল্লি, বলাকা, মান্ধারী বাজার এলাকার মহাজাতি ও অগ্রগামী ক্লাব, লিচুবাগানের বিশ্বনাথ স্মৃতি সংঘ, নবাঙ্কুর উল্লেখযোগ্য। তবে দর্শনার্থীদের কাছে সব পুজো উদ্যোক্তাদের মধ্যে বিশেষ নজর থাকছে হালিশহরের বাগমোড়ের দিকে।

ত্রিপর্ণ-র পদ্মাবত।

কেননা, এখানেই এবার আয়োজিত হচ্ছে বিতর্কিত চলচ্চিত্র ‘পদ্মাবত’ অবলম্বনে থিম। অদূর কুমোরপাড়ায় উঠে আসছে পুরীর গুপ্ত বৃন্দাবনের ভাবাদর্শে ‘ভাবের বৃন্দাবন’। একটু এগিয়ে গেলেই দেখা মিলবে ব্যতিক্রমী আয়োজন ২৫ হাত দুর্গা।

ভাবের বৃন্দাবন।

বাগমোড়ের পদ্মাবতের থিম ভাবনায় ফুটে উঠছে মেবারের রাজপ্রাসাদ। সঙ্গে সেই আনুষঙ্গিক দৃশ্যপট। সংস্থার প্রধান প্রবীর সরকার জানালেন, রানি পদ্মাবতী ছিলেন নারী সমাজের মূর্ত প্রতীক। সতীত্ব রক্ষায় তিনি আত্মাহূতি দেন। আর বর্তমানে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জিও নারীশক্তির প্রতীক। এই দুই নারীকে শ্রদ্ধা জানাতেই বেছে নেওয়া হয়েছে পদ্মাবত থিমকে।

বলাকা শিশুমহল।

পাশাপাশি কুমোরপাড়া-আগুড়িপাড়া অধিবাসীবৃন্দ আয়োজন করেছে ভাবের বৃন্দাবন। সংস্থার কর্ণধার সুজিত দাস জানান, দেশজুড়ে চলছে হানাহানির রাজত্ব। যে কারণে থিম হিসেবে বেছে নেওয়া হয়েছে মহাপ্রভুর আদর্শকে। তুলে ধরা হচ্ছে পুরীর গুপ্ত বৃন্দাবনের অনুকরণে ভাবের বৃন্দাবন। উল্লেখ্য, সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বার্তা দিতে এই মণ্ডপের দেবীর হাতে থাকছে না কোনও অস্ত্রও।

বাগমোড় থেকে একটু এগিয়ে গেলেই দেখা মিলবে বৃহৎ দুর্গা প্রতিমা, আচার্যপাড়ার দেশবন্ধু ক্লাবের আয়োজন। বীজপুর এলাকায় এবারই প্রথম এধরনের বৃহৎ প্রতিমার বন্দনা হচ্ছে।

এছাড়াও বাগমোড়ের রাসমনি ঘাটের দিকে একটু এগোলেই হেলেন্চা যুবগোষ্ঠী ও কল্যাণ সংঘের পুজোর ব্যতিক্রমী আয়োজন। ডানলপ ঘাটের কাছে রামসীতা লেনের অধিবাসীদের আয়োজনেও নজর রয়েছে দর্শককুলের। আর খাসবাটি অন্চলের বলাকা শিশু মহল-তো আছেই। এখানেই এবার ফুটে উঠছে আফ্রিকার আদিবাসীদের দৈনন্দিন জীবনযাপনের প্রতিচ্ছবি। সবমিলিয়ে এবার পুজোতে কাঁচরাপাড়াকে টক্কর দিতে এককদম এগিয়ে হালিশহর।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: