প্রেমের উপহার স্বরূপ প্রেমিককে পিটিয়ে, জ্যান্ত পুড়িয়ে মারল প্রেমিকার পরিবার

0

HnExpress অর্নব দেবনাথ, পূর্ব মেদিনীপুর : প্রতিবেশী কলেজ ছাত্রীর সঙ্গে প্রেম করতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়ে যায় যুবক। আর সেই আক্রোশেই যুবককে রাতভর পেটানোর পর তার গায়ে পেট্রোল ছিটিয়ে জ্যান্ত পুড়িয়ে মারল প্রেমিকার পরিবার। এই মর্মান্তিক নারকীয় ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব মেদিনীপুরের ভুপতিনগর থানার খাঁনজাতাপুর গ্রামে। মৃত যুবকটির নাম রঞ্জিত মন্ডল (২১)। সুত্র অনুযায়ী শনিবার ভোর রাতে ছেলেটিকে দাউদাউ করে আগুনে পুড়তে থাকার খবর পায় স্থানীয় এলাকাবাসীর থেকে, আর তারপরেই ছুটে আসে ভুপতিনগর থানার পুলিশ। এরপর জল ছিটিয়ে আগুন নেভানোর পর তাঁর আধপোড়া দেহ উদ্ধার হয়েছে, স্থানীয় হাসপাতালে নিয়ে গেলে তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করা হয়।

এই ঘটনায় প্রেমিকা সায়নী মন্ডল (১৯) সহ তাঁর পরিবারের মোট ৬ জনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে ১৪ দিনের পুলিশ হেফাজতে রাখা হয়েছে তাদের। তবে আশ্চর্যের কথা হল, যেখানে আজকের মানুষ স্পেসিফে করে চাঁদে পৌঁছে যাচ্ছে, অন্য গ্রহে স্থায়ী বসবাসের জন্য প্রাণের খোঁজ করে চলেছে, সেই মর্ডান প্রযুক্তি বিদ্যার যুগে এমন নজীর বিহীন নৃশংস ও নারকীয় ঘটনা এলাকায় কোথাও ঘটেছে বলে মনে করতে পারছেন না তদন্তকারীরাও। পুলিশ গোয়েন্দা ও স্থানীয় সূত্র থেকে জানা গেছে যে, ভুপতিনগর এলাকার দক্ষিণ বায়েনদা গ্রামের বাসিন্দা রঞ্জিতের মা দীর্ঘদিন হল গত হয়েছেন। তারপর তাঁর বাবা দ্বিতীয়বার বিয়ে করে। এরপর থেকেই ছেলেটি খাঁনজাতাপুরে তাঁর মামার বাড়িতে এসে ওঠে।

ইতিমধ্যে মামার বাড়ির সামান্য দূরে থাকা সায়নীর সঙ্গে আলাপ হয় রঞ্জিতের। সেই আলাপ ধীরে ধীরে প্রেমে পরিণতি পায়। বেশ কয়েক বছর ধরে সবার চোখের আড়ালে চলতে থাকে তাঁদের মেলামেশা। বর্তমানে মেয়েটি কলেজের প্রথম বর্ষের ছাত্রী। আর ছেলেটি দিল্লীতে সোনার দোকানে কর্মরত ছিল। গত ১৪ই ফেব্রুয়ারি ছিল আন্তর্জাতিক ভালবাসা দিবস, ঠিক যেদিন পুলওয়ামায় জঙ্গি হামলায় শহীদ হন ৪৪ জন ভারতীয় সৈনিক। যখন দেশ জুড়ে এই মর্মান্তিক পরিস্থিতিতে সবাই শোকে স্তব্ধ, ঠিক তখনই দেশের আরেকদিকে সেই ভালবাসা দিবসের মাসেই ভালবাসার পরিবর্তে উপহার স্বরূপ এমন এক।সংবেদনশীল করুণ পরিনতি হবে একজন প্রেমিকের তা কে জানত!

দিন চারেক আগে দিল্লী থেকে মামা বাড়িতে ফেরে ছেলেটি। আর।শুক্রবার রাতে মেয়েটি তাঁকে ফোন করে দেখা করতে বলে। রাতে খাওয়া দাওয়ার পর সবাই ঘুমিয়ে গেলে ছেলেটি সবার অগোচরে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়ে মেয়েটির সঙ্গে দেখা করতে যায়। সেই সময় তাঁদের দু’জনকে হাতেনাতে ধরে ফেলে মেয়েটির পরিবার। শুরু হয় গণধোলাই। ধীরে ধীরে ছেলেটি নিস্তেজ হয়ে পড়লে তাঁকে টেনে পাশের ঝোপের কাছে নিয়ে গিয়ে গায়ে পেট্রোল ছিটিয়ে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।

ঘটনাটি জানতে পেরেই স্থানীয়রা ভুপতিনগর থানায় খবর দেয়। পুলিশ এসে জল ছিটিয়ে দীর্ঘ চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে নিয়ে আসে। এরপর আধপোড়া দেহটিকে উদ্ধার করে কাঁথি মহকুমা হাসপাতালে ময়না তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছিল। সেই সঙ্গে মেয়েটির পরিবারের ৬ জনকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল তার তিনজন বন্ধুকেও আটক করেছে পুলিশ কেসের ব্যাপারে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য। তবে পুলিশের সন্দেহের তালিকায় মৃত ব্যাক্তির বন্ধুরাও রয়েছে বলে সুত্রের খবর।

Leave a Reply

%d bloggers like this: