মুড়ির দোকানের দরজা ভেঙ্গে মুড়ি খেয়ে প্রাতরাশ সারলো গজরাজ

HnExpress বিশেষ প্রতিনিধি, পশ্চিম মেদিনীপুর : সবে ভোর হতে চলেছে, এমন সময় কড়কড় মড়মড় শব্দে ঘুম ভাঙ্গতেই উঠে দেখে এক গজরাজ দোকানের স্যাটার ভেঙ্গে মুড়ির বস্তা খুলে জমিয়ে মুড়ি খাচ্ছে। দেখেই চক্ষু চড়কগাছ দোকানের মালিকের। সামনের দাঁড়িয়ে রয়েছে মূর্তিমান স্বয়ং গজরাজ। পরে কিছুটা ধাতস্থ হয়ে চিৎকার শুরু করে। তাঁর চিৎকারে প্রতিবেশী আর প্রাতঃ ভ্রমণকারীরা ছুটে এসে তারাও প্রথমে হতভম্ব হয়ে পড়ে। পরে চিৎকার চেঁচামেচি করে গজরাজ কে কোনো রকমে দোকানের সামনে থেকে সরিয়ে দেয়। মানুষের চিৎকারে হয়তো তার ভোজনের ব্যাঘাত ঘটছিল তাই একবস্তা মুড়ি শুঁড়ে তুলে নিয়ে জঙ্গলের দিকে নিজের এলাকায় চলে যায়।

আজ ভোরে এমন এক ঘটনার চাক্ষুষ সাক্ষী রইলো গোয়ালতোড়ের অনেকেই। মুড়ি দোকানের মালিক বিশ্বরুপ সাহা বলেন ভোরের দিকে একটা দাঁতাল হাতি এসে মুড়ি দোকানের স্যাটার ভেঙ্গে মুড়ি খেয়ে নষ্ট করে চলে যায়। গত বছরও একটি হাতি এসে স্যাটার ভাঙ্গে। এই ভাবে বছরের পর বছর চলতে থাকলে খুব সমস্যায় পড়বো। গত বারের ক্ষতিপূরন এখণো পায়নি। বনদপ্তর অবিলম্বে হাতি অন্যত্র সরিয়ে নিয়ে যাক। মুড়ি দোকানের স্যাটার ভাঙ্গার আগে গজরাজ একটি ধানের গোলার স্যাটার ভাঙ্গে আসে। নিন্দুকেরা বলেন, ধান তো প্রায় রোজেই খাচ্ছে। তাই ধানের গোলার স্যাটার ভাঙ্গলেও ধান না খেয়ে মুড়ি খেয়েছে মুখের স্বাদ পরিবর্তনের জন্য।
বনদপ্তর সুত্রে জানা গিয়েছে গোয়ালতোড় ও মাইলিসাই রেঞ্জের বনাঞ্চলে দু একটি আবাসিক হাতি রয়েছে। তাদেরই একটি খাবারের সন্ধানে বেরিয়ে এই কান্ড ঘটিয়েছে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: