এক অভিনব পন্থায় বাংলার গর্ব রিচা সিংকে সম্মানিত করলেন ডিসি কল্যাণ মুখোপাধ্যায়

HnExpress ইন্দ্রানী সেনগুপ্ত, কলকাতা ঃ এ বছরের ইন্ডিয়ান স্কুল সার্টিফিকেট (আইএসসি) পরীক্ষায় ৯৯.২৫% নম্বর সহ উত্তীর্ণ হয়ে সবাইকে দারুণ ভাবে চমকে দিল বাংলার গর্ব রিচা সিং। রানীকুঠির জি ডি বিড়লা সেন্টার ফর এডুকেশন স্কুলের একজন মেধাবী ছাত্রী বলেই পরিচিত সে। আর সব থেকে গর্বের বিষয় হলো যে রিচা পুরো দেশে চতুর্থ স্থান অধিকার করেছে তার কঠোর অধ্যাবসায় ও মেধার জোরে। রিচার বাবা রাজেশ কুমার সিং একজন দায়িত্ব প্রাপ্ত ও কর্তব্যরত পুলিশ অফিসার। আজ তিনি তাঁর আদরের কন্যার এহেন সাফল্যে স্বভাবতই ভিষণ গর্ব অনুভব করছেন। বর্তমানে তিনি অ্যাডিশনাল ওসি, গড়িয়াহাট থানার ভারপ্রাপ্ত ইন্সপেক্টর।

আর এই চুড়ান্ত সাফল্যের জন্য রিচাকে আজ ডিসি সাউথ ইস্ট ডিভিশনের অফিসে সংবর্ধিত করা হয়, তবে সেটা করা হয় একটু অন্যভাবে, এক অন্য মননে। আজ দেশের উজ্জ্বলতম নব প্রজন্ম, দেশের আগাম ভবিষ্যৎ ও গর্বকে ডিসি কল্যাণ মুখোপাধ্যায় ঘন্টা খানেকের জন্য নিজের চেয়ার ছেড়ে দিয়ে তাকে সম্মানিত করেন। এটা ছিল রিচার জীবনের প্রতীকী সম্মান, যা রিচাকে আগামী দিন গুলিতে মেধার সাথে সাথে আরও স্বতঃস্ফূর্ত ভাবে এগিয়ে যেতে উৎসাহিত করবে।এর পাশাপাশি আজ লালবাজারেও রিচাকে সংবর্ধিত করলেন মাননীয় নগরপাল ডঃ রাজেশ কুমার। তাঁর সঙ্গে ছিলেন রিচার বাবা ইন্সপেক্টর রাজেশ সিং।

আজ বাংলার ঘরে ঘরে, এমনকি দেশের দেশের কোনায় কোনায় যেন এমনই হাজারো কন্যা সন্তানের জন্ম হয়। আজ কন্যা সন্তানই যে মা, বাবা, পরিবারের গর্ব হয়ে উঠতে পারে তা এই বর্বরোচিত সমাজের চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল রিচা সিং। তাঁর এই সাফল্য কলুষিত সমাজের দিকে আঙুল উঁচিয়ে বলছে, দেখো তোমরা মেয়েরাও পারে দেশ ও দশের নাম উজ্জ্বল করতে। আজ কোনো কিছুতেই মেয়েরা আর পিছিয়ে নেই। তাই এখনো সময় আছে হাতে, বন্ধ কর কন্যা ভ্রুণ হত্যা, বন্ধ কর নারী নির্যাতন, তাদেরকেও সুযোগ করে দাও বেঁধে থাকার, সুযোগ দাও তাদের প্রতিভাকে সমাজের কাজে লাগাতে। কলকাতা পুলিশ এবং সমগ্র দেশবাসীর পক্ষ থেকে রিচা সিংকে জানাই হার্দিক অভিনন্দন! মনে রেখ রিচা, কলকাতা পুলিশ পরিবার আজ গর্বিত তোমার জন্য।

ছবি ও তথ্যসূত্র ঃ কলকাতা পুলিশের সোস্যাল মিডিয়ার সৌজন্যে।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: