আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের নবীন বরন ও শিক্ষক দিবস উদযাপন

HnExpress অলোক আচার্য নিউব্যারাকপুর : সম্প্রতি নিউব্যারাকপুর আচার্য প্রফুল্ল চন্দ্র মহা বিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের নবীন বরন ও শিক্ষক দিবস উদযাপন হল স্হানীয় কৃষ্টি প্রেক্ষাগৃহে। প্রদীপ প্রজ্বলন করে অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন মহা বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ ড. শক্তিব্রত ভৌমিক। অধ্যক্ষ উদ্বোধনী ভাষণে বলেন শিক্ষক ছাত্র এই দুটি শব্দ একটি একাত্মবোধ গড়ে না উঠলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান স্হায়িত্ব হতে পারে না।

একজন শিক্ষক আজীবন ছাত্র। সহিষ্ণুতার আচরণ শ্রদ্ধা ভালোবাসা পাল্টে যাচ্ছে বিশ্বায়নের যুগে। শিক্ষা গুরুমুখী বিগত দিনেও ছিল, গুরুকুল প্রতিষ্ঠানের বাইরে। দেনাপাওনা নির্ভরতায়। ছাত্র শিক্ষকের মনে বিঘ্নিত হয়। পারস্পরিক সমন্বয় বোঝাপড়া উন্নততর পরিবেশে না নিয়ে যেতে পারলে শিক্ষায় ব্যাঘাত ঘটবে। মহা বিদ্যালয় ন্যাক “এ” গ্রেড প্রাপ্ত। এটা আমার গর্ব নয়। প্রত্যেকের গর্ব। শুধুমাত্র অধ্যায়ন নয় সুনাগরিক হিসাবে সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ছাত্র শিক্ষকের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে। সামাজিক মূল্যবোধ গড়ে তুলতে হবে পারস্পরিক বোঝাপড়ায়।

আগামী দিনে মহা বিদ্যালয়কে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীতকরনের নিরন্তর প্রয়াস চালিয়ে যাচ্ছি। ছাত্র শিক্ষক আগামী দিনে চলার পর সুগম মসৃণ হোক এই কামনা করি। শিক্ষকদের সম্মানিত করা হচ্ছে। শিক্ষক দিবস প্রতিদিনই করা হচ্ছে। নবাগত ছাত্র ছাত্রীদের অভ্যর্থনা জানিয়ে বরন করে নেওয়া হল। শিক্ষক ছাত্র পারস্পরিক সম্পর্ক সহিষ্ণুতা আচরণ শ্রদ্ধা ভালোবাসা উজার করতে হবে উভয়কে। পরিস্হিতি ও পরিবেশে ব্যক্তিগত স্বার্থ থাকবেনা। অনুষ্ঠানে সম্মানীয় অতিথি নববারাকপুরের নবরুপকার প্রাক্তন পুরপিতা ও রেনবো অ্যাথলেটিক ক্লাবের সভাপতি সুখেন মজুমদার বলেন আজ কলেজের এই নবীন বরন ও শিক্ষক দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে এসে আমি নিজেকে ধন্য মনে করি।

উদবাস্তু কলোনির প্রতিষ্ঠাতা রূপকার হরিপদ বিশ্বাস এই কলেজ প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। কলেজটি আজ ন্যাক এ গ্রেড পেয়েছে। আগামী দিনে এলাকার উন্নয়নকে সাথে করে বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নীত করব। এটা আমাদের লক্ষ্য। উদবাস্তু নগরীকে স্বপ্ন নগরীতে পরিণত করব। কলেজের পড়াশুনায় ও ফলাফল যথেষ্ট ভালো। অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্হিত ছিলেন কলেজের পরিচালন সমিতির সভাপতি ড. নিখিল চন্দ্র হালদার, সদস্য ড. বিধান চন্দ্র মণ্ডল, শিক্ষাবিদ নির্মল কুমার বসু, অধ্যাপিকা নন্দিনী গাঙ্গুলি, ড. সর্বাণী ভট্টাচার্য, কণা বিশ্বাস, ড. দীপঙ্কর পাত্র, অম্লান দাশগুপ্ত, সন্দীপ সাহা, অর্পিতা বল, পৌরপিতা ও নিউবারাকপুর তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভাপতি মনোজ সরকার, তৃণমূল ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি তৃনাঙ্কুর ভট্টাচার্য, দমদম সংসদীয় বানীব্রত চক্রবর্তী, জেলা তৃণমূল ছাত্র পরিষদের সভানেত্রী পারমিতা সেন, তৃণমূল যুব সভানেত্রী জয়া দত্ত, বিলকান্দা গ্রাম পঞ্চায়েত সদস্য শেখ আলমগীর আলী, রমেশ রায়, পৌরপিতা নিখিল মালো, প্রবীর সাহা প্রমুখ।

মহাবিদ্যালয়ের দীর্ঘ পথ চলার উন্নয়নে একটি তথ্য চিত্র প্রদর্শিত হয়। অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করেন সা রে গা মা পা খ্যাত সঙ্গীত শিল্পী সতীশ গাজমীর এবং তথাস্ত বাংলা ব্যান্ডের শিল্পীরা। সমগ্র অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনার দায়িত্বে ছিলেন মহাবিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের সাধারন সম্পাদক সুমন দে। কলেজের সকল শিক্ষক অধ্যাপক অধ্যাপিকাদের সম্মানিত করা হয়।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: