দেশের গুজব রাজনীতির বিরুদ্ধে সটান রুখে দাঁড়ালেন সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়

HnExpress নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা ঃ এর মধ্যেই বেশ কয়েকটি ডিজিটাল পোর্টাল মিডিয়ায় দাবি করা হয়েছিল, আমার স্ত্রীকে নাকি সোনা ও টাকা সমেত গ্রেফতার করা হয়েছে বিমানবন্দরে। কিন্তু কোথাও এই খবরের কোনো সত্যতা নেই। এটি সর্বৈব মিথ্যে। ভোটের ফায়দা তুলতে ভাইরাল করা হয়েছে এই খবর। সমস্ত মিডিয়ার কাছে এমনটাই দাবী করলেন তৃণমূল কংগ্রেসের যুবনেতা তথা সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি আমাদের কয়েকটি প্রশ্ন উত্তরের আকারে জানালেন যে, কাস্টমস FIR করার আগেই কয়েকটি জাতীয় চ্যানেলের কাছে তার কপি পৌঁছে যাচ্ছে। কিন্তু প্রশ্ন হল, কাস্টমসের FIR-এর আগেই তা ফাঁস হল কীভাবে?

চিঠির কপির কভার লেটারে লেখা রয়েছে সিক্রেট। FIR-এর খসড়া দিল্লি থেকে করে পাঠানো হয়েছে। রাফালের কাগজও প্রতিরক্ষা মন্ত্রকের থেকেই হারিয়ে যাচ্ছে।

তিনি আরও বললেন, আপনাদের কাছে প্রমাণ থাকলে CCTV ফুটেজ দেখান। কোনও ক্লিপে যদি দেখা যায়, শুল্ক দফতরকে স্থানীয় পুলিশ বাধা দিয়েছে, তাহলে আমি রাজনীতিই ছেড়ে দেব।

তিনি বললেন, আমার দাবি যদি ২ কেজি সোনা নিয়ে আটক করা হয়ে থাকে আমার স্ত্রীকে, তাহলে সেই সোনা বাজেয়াপ্ত করা হল না কেন? আমি এত বড় কথা বলছি যদি কেউ ২ কেজি তো দূর, ২ গ্রাম সোনা চুরি প্রমাণ করতে পারবে না সন্ত্রাসবাদী বিজেপি। কিছু মিডিয়াতে খবর হয়েছে যে, শুল্ক দফতরকে নাকি স্থানীয় পুলিশ বাধা দেয়। তাহলে কেন কাস্টমস কর্তারা CISF-এর সহায়তা নিল না?

তিনি আরও জানালেন, অমিত শাহের বিরুদ্ধে আমি মামলা করেছি বলেই মূলত ওরা ভয় পেয়েছে। আর তাই আমার স্ত্রীকে টার্গেট করা হল। এরপর কি আমার ৫ বছরের মেয়েকেও টার্গেট করবে কোনো না কোনো মিথ্যে অপরাধে জড়াতে? বোধহয় এটাই বিজেপি, কংগ্রেস ও সিপিএম-এর সংস্কৃতি। এরা মাঠে ময়দানে নেমে রাজনৈতিকভাবে লড়াই করতে পারে না বলেই বোধহয় ব্যক্তিগত ভাবে মিথ্যাচার পূর্বক আক্রমণ করে।

Leave a Reply

%d bloggers like this: