এক নজরে ঃ মোদী সরকারের শাসনকালে জঙ্গি হামলার বিবরণ

HnExpress সমীর দাস, নদীয়া ঃ বৃহস্পতিবার জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামাতে সন্ত্রাসীরা নিরাপত্তারক্ষীদের টার্গেট করে তাঁদের বাসে আইডি বিস্ফোরণ করে। এই ভয়ঙ্কর সন্ত্রাসী হামলায় বৃহস্পতিবার ভারতীয় সিআরপিএফ এর ৪৪ জন জওয়ানের তাজা তাজা প্রান চলে যায়। হিসাবে মোদীর শাসনকালে বড় বড় সন্ত্রাসী হামলার থেকে এটাই সবথেকে বড় সন্ত্রাসী হামলা বলা হচ্ছে। এছারাও এই সন্ত্রাসী হামলাকে সেনাবাহিনীর উপর ২০ বছরের সব থেকে বড় সন্ত্রাসী হামলা বলেও বলা হচ্ছে। একদিকে প্রধানমন্ত্রী মোদী ও তাঁর দল বিজেপি দেশ ও দেশের সেনাদের নিয়ে অনেক আবেগি ভাষন দিলেও, মোদীর শাসনকালেই সেনারা ও সেনাদের পরিবার সব থেকে বেশি কষ্ট পেয়েছে এবং বহু জওয়ান শহীদ হয়েছেন এমনটাই বক্তব্য দেশের সমগ্র রাজনৈতিক দলগুলির। মোদীর শাসনকালে আরো সন্ত্রাসী হামলার সংক্ষিপ্ত বিবরণ নিচে পড়ে নিন।

গুরুদাসপুর সন্ত্রাসী হামলা : তিন জন সন্ত্রাসী প্রথমে যাত্রী বাসে হামলা চালায়। এরপর দিনানগর থানায় প্রবেশ করেন গুলিবর্ষণ করতে থাকে। এই হামলা চালানো হয় ২০১৫ সালের জুলাই মাসে। এই হামলায় ৭ জন নিহত হন।

পাঠানকোট সন্ত্রাসী হামলা : ২০১৬ সালের বছরের প্রথম মাস অর্থাৎ জানুয়ারিতে জয়েশ-ই-মোহাম্মদের সন্ত্রাসীরা পাঠানকোট বায়ুসেনার বেসে হামলা চালায়। এই হামলায় ৩ নিরাপত্তাকর্মী নিহত হয়ে যান। যদিও জবাবে সেনাবাহিনী চার সন্ত্রাসীকে হত্যা করেছিল।

উড়ি সন্ত্রাসী হামলা : উড়িতে ভারতীয় সেনাবাহিনীর গোপন আস্তানায় হামলা চালিয়েছিল সন্ত্রাসীরা। এই হামলাকে এতদিন সব থেকে বড় সন্ত্রাসী হামলা বলা হচ্ছ ছিল। বৃহস্পতিবারের পুলওয়ামাতে হওয়া ভয়াবহ জঙ্গি হামলা উড়ির সন্ত্রাসী হামলাকেও হার মানিয়েছে। সে সময় উড়ি সন্ত্রাসী হামলায় ১৯ সৈন্য শহীদ হন। ২০১৬ সালের ১৮ সেপ্টেম্বর সন্ত্রাসীরা এই বড় হামলা চালিয়েছিল। প্রতিশোধ নেওয়ার সময় নিরাপত্তা বাহিনীও ৪ সন্ত্রাসীকে আটক করে।

নাগরোটা সন্ত্রাসী হামলা : ২০১৬ সালের ২৯ নভেম্বর নাগরোটায় সেনাবাহিনীর ১৬ তম কর্পসে সন্ত্রাসী হামলায় সেনাবাহিনীর ৭ সেনা সদস্য নিহত হন।

পুলওয়ামার সন্ত্রাসী হামলা : ২০১৭ সালে ২৬ আগস্ট সন্ত্রাসীরা পুলওয়ামার নিরাপত্তা বাহিনীর উপর হামলা চালায়। হামলায় ৪ নিরাপত্তা বাহিনী নিহত হয়ে ছিল।

সুন্জান সেনা ক্যাম্পে সন্ত্রাসী হামলা : ২০১৮ সালের ১০-১১ ফেব্রুয়ারি জম্মু জেলার সুন্জান সামরিক ক্যাম্পে সন্ত্রাসীদের হামলায় ৬ জন জওয়ান নিহত হন।

পুলওয়ামা সেনাবাহিনীর বাসে সন্ত্রাসী হামলা : ২০১৯ সালে ১৪ই ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক ভালবাসা দিবসের দিনে জম্মু ও কাশ্মিরের পুলওয়ামাতে জঙ্গিরা নিরাপত্তা বাহিনীকে লক্ষ্যবস্তু করেছিল। পুলওয়ামার আভান্তিপোরা এলাকার ঘোরপোরা এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর বাসে সন্ত্রাসী সংগঠন জাইশ-ই-মোহাম্মদের সন্ত্রাসীরা একটি আত্মঘাতী বোমা হামলা করে। সুত্রের খবর অনুযায়ী বৃহস্পতিবার, এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত সিআরপিএফ এর ৪৪ জন সদস্য শহীদ হয়েছেন।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: