শুরু হল ভৌতিক কাহিনী অবলম্বনে “আমার ভূতনাথ” ছবির কর্মশালার প্রথম পর্ব

HnExpress অলোক আচার্য মধ্যমগ্রাম : শিশু কিশোররা নাকি অহেতুক ভূতের ভয় পায়। তবে কি সত্যি কি ভূত আছে? ভূত কেন হয়?ভুত কি সত্যিই ভয়ংকর? এমন নানা প্রশ্নের উত্তরের ঝুলি হাতে ভৌতিক গল্প নিয়ে শীঘ্রই মুক্তি পেতে চলেছে শান্তিলতা ফিল্ম প্রডাকশন এর তৃতীয় ছবি “আমার ভূতনাথ”। এই সিনেমায় তরুন প্রজন্মের শিশুদের প্রতিভা অন্বেষণের স্হান পেয়েছে, এমনটাই  HnExpress  মিডিয়ার সংবাদ প্রতিনিধিকে একান্ত সাক্ষ্যাৎকারে জানালেন ছবির পরিচালক তথা নির্দেশক উত্তমকুমার দাস ও দেবাশিস দত্ত।

এই ছবিতে ছোট ছেলেমেয়েদের অভিনয়ের একটা বিরাট ভুমিকা দেখতে পাওয়া যাবে। প্রায় ৪০টি চরিত্র রয়েছে ছবিটিতে। ৫টি অডিশন পর্বের পরে মোট ৫টি ওয়ার্কশপ পর্বের প্রথমপর্ব শুরু হল আজ মধ্যমগ্রাম মাইকেল নগরের ন্যাশানাল মডেল হাই স্কুলের সভাগৃহে। পর পর ৫টি ধারাবাহিক পর্বের মধ্য দিয়ে চলবে এই ওয়ার্কশপ।

পুরনো চলচ্চিত্র জগতের নামিদামী ও খ্যাতনামা অভিনেতা, অভিনেত্রীদের পাশাপাশি নতুনদের সুযোগ করে দেওয়া হয়েছে বলে জানান পরিচালকদ্বয়। সিনেমায় টাইটেল সং এর সাথে বেশ কিছু গান রয়েছে, যার মধ্যে একটি গান গেয়েছেন বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী নচিকেতা চক্রবর্তী। ছবিটির গল্প ও সংলাপে রয়েছেন উত্তমকুমার দাস, সাথে রয়েছেন দ্বিতীয় সহকারী নির্দেশক শান্তনু হালদার।

এদিনের কর্মাশালায় পরিচালক উত্তম কুমার দাস আমাদের সংবাদমাধ্যমকে জানালেন যে, গ্রামের এক প্রভাবশালী ব্যাক্তি, যিনি ভিষণই পরোপকারী ছিলেন। গ্রামের প্রতিটি মানুষকে তিনি নিজের পরিবার ভাবতেন এবং তাদের বিপদে আপদে ছুটে যেতেন। কিন্তু একটা সময়ের পর সেই সব স্বার্থপর মানুষগুলির থেকে একটা মানসিক আঘাত পেয়ে একটু চুপচাপ হয়ে যান আর নিজেকে সব কিছু থেকে গুটিয়ে নেন।  চুপচাপই চলছিল তার দিন গুলি, মোটামুটি ভাল। কিন্তু হঠ্যাৎ নিজের পরিবারের মধ্যেও নেমে এল কালো মেঘের ছায়া। পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে নিজের একমাত্র ছেলে ও তার বৌ এর কাছ থেকে নিদারুণ দূর্ব্যাবহার ও অপমানজনক কথায় স্তব্ধ হয়ে যান তিনি। এ আমি কাদের মাঝে বাস করছি! এতদিন কষ্ট করে কাদের জন্য উপার্জন করলাম? এরাই কি তারা, যাদের জন্য নিজের শেষটুকুও নিংড়ে দিয়েছি! নাঃ, এদের মাঝে আর না। যে বাড়ি অন্ত প্রাণ, সেই রাতে সেই বাড়িতেই তিনি আত্মঘাতী হন। বাড়িতে এই বিশাল দুর্ঘটনা ঘটে যাওয়ার পরই এক ভয়াবহ পরিস্হিতি সৃষ্টি হয়। জন্ম হয় ভুতনাথের। বাড়ির লোকজন প্রতিনিয়ত কেউ না থেকেও কারুর উপস্থিতি অনুভব করতে পারে। বাড়িতে থাকা সবাইকেই নানা ভাবে উতক্ত্য করতে থাকে সেই পরোপকারী মানুষটি, যে কিনা আজ ভুতনাথ। পরিবার এর লোকজন ভীষণ ভয় পেয়ে যায়। ফলে বাড়িতে ওঝা-তান্ত্রিক আসে। শুরু হয় হোম যজ্ঞ, আরো অনেক কিছু। তার মাঝেই ওই বাড়িতে ঘুড়তে আসা একটি ফুটফুটে বাচ্চার সাথে বন্ধুত্ব হয় ভুতনাথের। কিন্তু এত কিছুর পরেও কি আদৌ ভুতনাথকে তাড়াতে পারল? কি কি হল সেই ভুতের ক্ষপ্পড়ে পরে? হাসি, আড্ডার মাঝে টানটান উত্তেজনায় ভরা এক এডভ্যাঞ্চারেস মূলক একটি সুন্দর অথচ কেমন যেন গা ছমছম করা ভৌতিক গল্প “আমার ভূতনাথ” ছবি এখন মুক্তির অপেক্ষায়। আর তারই প্রস্তুতিপর্ব হিসেবে জোর কদমে চলছে ছবির মহড়া।

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: