আজ কলম্বো বাস স্ট্যান্ড থেকে ৮৭টি বম্ব ডেটনেটর উদ্ধার করল শ্রীলঙ্কার বম্ব স্কোয়ার্ড

HnExpress ওয়েবডেক্স নিউজ, কলম্বো ঃ ইস্টার রবিবারের সকাল, গভীর ভাবে আত্মিক প্রার্থনায় নিমগ্ন শহরের খ্রীষ্টিয় সমাজ। হঠাৎ এক ভয়ানক বিস্ফোরণ, কয়েক মিনিটের মধ্যেই উলোটপালোট হয়ে গেল সব কিছু। আর মুহুর্তের ভিতর শত শত নিরীহ মানুষের রক্তের বন্যায় ভেসে গেল শ্রীলঙ্কা। গতকাল সকাল ৮.‌৪৫ মিনিট থেকে পরপর ছয়টি বিস্ফোরণ হয় দ্বীপরাষ্ট্রের রাজধানী কলম্বোর তিনটি গির্জা এবং তিনটি পাঁচতারা হোটেলে। ইস্টারের সকালে শহরের বিভিন্ন গির্জা গুলিতে প্রার্থনার জন্য ভিড় জমিয়ে ছিলেন ধর্মপ্রাণ খ্রিস্ট ভক্তরা।

আর সেই ভিড়কেই টার্গেট করেছিল বিস্ফোরণকারী সন্ত্রাসবাদীরা, এমনটাই মনে করছে শ্রীলঙ্কা সরকার। যে গির্জাগুলিতে বিস্ফোরণ হয়েছে, তার মধ্যে সেন্ট অ্যান্টনিস গির্জা কলম্বো শহরের মধ্যেই অবস্থিত। বাকি দুটির মধ্যে সেন্ট সেবাস্টিন গির্জা কলম্বো সংলগ্ন নেগোম্বোর কাটুওয়াপিটিয়ায় এবং অপরটি বাট্টিকালোয়ায়। এছাড়া কলম্বোর পর্যটক প্রিয় সিনামোন গ্র‌্যান্ড হোটেল, শাঙ্গরিলা হোটেল এবং কিংসবারি হোটেলেও ঘটে ভয়াবহ বিস্ফোরণ।

এদিনের বিস্ফোরণের তীব্রতা এতটাই ছিল যে সেন্ট সেবাস্টিন গির্জার ছাদ সম্পূর্ণ উড়ে যায়। ঠিক কী ধরনের বিস্ফোরক দিয়ে বিস্ফোরণ ঘটানো হয়েছিল কাল? সুত্রের খবর আজ সকালে কলম্বো বাস স্ট্যান্ড থেকে ৮৭টি বম্ব ডেটনেটর উদ্ধার করেছে শ্রীলঙ্কার বম্ব স্কোয়ার্ডের স্পেশাল পুলিশ ফোর্স। আজ পুলিশের গোয়েন্দা বিভাগের যৌথ তল্লাশিতে উদ্ধার হয়েছে এই বোম ডেটনেটর গুলি।

যদিও এখনও কোনও জঙ্গি গোষ্ঠী হামলার দায় স্বীকারক্তির কোনো খবর নেই। তবে কার্যত বিস্ফোরণস্থল ঘিরে রেখে তল্লাশি চালাচ্ছে সেনাবাহিনী এবং পুলিসের গোয়েন্দা বিভাগ। মৃতদেহগুলি উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য নিয়ে যাওয়া হয়েছে। বিশেষ সুত্র অনুযায়ী এখনও পর্যন্ত ২৯০ জনের বেশি মানুষের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। যদিও এই সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ এখনো পর্যন্ত আহতের সংখ্যা ইতিমধ্যেই ৫০০ ছাড়িয়ে গেছে। যাদের মধ্যে বেশ কয়েক জনের অবস্থাই অতন্ত আশঙ্কাজনক। জখমদের হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে, চলছে তাদের দ্রুত চিকিৎসার সবরকম সহযোগিতা।

এদিন বিস্ফোরণের তীব্র নিন্দা করে ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ বলেন, তিনি শ্রীলঙ্কার হাই কমিশনের সঙ্গে সর্বদা যোগাযোগ রাখছেন। ভারত সরকার এই পরিস্থিতির উপর বিশেষ নজর রাখছে। ইতিমধ্যেই প্রবাসী ভারতীয়দের যেকোন রকম সাহায্যের জন্য সরকারি ভাবে হেল্পলাইন নম্বর খোলা হয়েছে। যদিও এমন ঘটনা যে ঘটতে পারে সে আশঙ্কার কথা নাকি আগেই জানিয়েছিলেন শ্রীলঙ্কার পুলিশ প্রধান৷ শুধু তাই নয়, এক বিদেশি গোয়েন্দা সংস্থার রিপোর্ট জানাচ্ছে যে, জঙ্গিদের টার্গেটে ছিল শ্রীলঙ্কার ভারতীয় দূতাবাসও। বিস্ফোরণের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে আট জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ তারা সেই সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত কিনা তা এখনো পরিস্কার নয়

Leave a Reply

Latest Up to Date

%d bloggers like this: